× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

দায় সরকারের

প্রথম পাতা

সৈয়দ আনোয়ার হোসেন
২০ অক্টোবর ২০২১, বুধবার

সাম্প্রদায়িক হামলার তদন্ত ও বিচার না হওয়ায় বারবার এমন ঘটনা ঘটছে। বর্তমান সরকার তাদের ঘোষণা অনুযায়ী-মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষ সরকার। যদি তাই হয়, মুক্তিযুদ্ধের লক্ষ্য ছিল অসাম্প্রদায়িক মানুষের রাষ্ট্র তৈরি করা। তবুও এই সরকার ক্ষমতাসীন থাকার পর একের পর এক সাম্প্রদায়িক ঘটনা ঘটেছে। কোনোটির বিচারও হয়নি, তদন্তও হয়নি। কাজেই সেই ঘটনার সংঘটনকারী, যারা অপরাধী তারা বারবার এই অপরাধটি করবার সুযোগটি পেয়ে যায়। সেই বিচারে আমি বর্তমান সরকারকে দায়ী করবো।
কেন ঘটেছে? কারা ঘটিয়েছে? সে সম্পর্কে কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই। তথ্যটা বেরিয়ে আসবে যদি বিচার বিভাগীয় তদন্ত হয়। কিন্তু দুঃখের কথা যে, তথ্য না থাকা সত্ত্বেও দুটি রাজনৈতিক বড় দল যার মধ্যে একটি ক্ষমতাসীন এবং আরেকটি প্রায় গণমাধ্যম ছাড়া অস্তিত্বহীন। তারা কিন্তু একে অপরের প্রতি কাদা ছোড়াছুড়ি করছে। একে অপরকে দোষারোপ করছে। বড় কথা হচ্ছে, যখন একটি অঘটন ঘটে একটি দেশে, ক্ষমতাসীন সরকারকেই অবিভাজ্যভাবে দায়িত্ব নিতে হয়। সেই সুবাদে বর্তমান সরকারকেই তাদের দায়িত্ব নিতে হবে।
কে করেছে? কেন করেছে? এই তথ্য জানানোর কর্তব্য সরকারের। তবে সাম্প্রতিক যে ঘটনা তাতে সরকারের দায়িত্ব হবে আমাদের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। তাদেরকে ক্ষতিপূরণ দেয়া ও পরিপূর্ণ পুনর্বাসন করা। যেহেতু সরকারের ব্যর্থতার জন্যই ঘটেছে এই ঘটনা। সেই কাজগুলো করতে যে অর্থের প্রয়োজন হবে সেটি সরকারি অর্থ না, বাংলাদেশের মানুষের টাকা। কাজেই মানুষের টাকা মানুষের জন্য খরচে অবশ্যই সরকারকে সচেতন হতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর