× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার , ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

উত্তর কোরিয়াকে যুক্তরাষ্ট্র: উস্কানি বন্ধ করে আলোচনায় বসুন

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) অক্টোবর ২৪, ২০২১, রবিবার, ১:২৯ অপরাহ্ন

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মধ্য দিয়ে উস্কানি দেয়া বন্ধ করে আলোচনায় ফিরতে উত্তর কোরিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্য দিয়ে পিয়ং ইয়ংয়ের সঙ্গে কোনো পূর্বশর্ত ছাড়া ওয়াশিংটন আলোচনায় প্রস্তুত বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনিয়র কূটনীতিক সাং কিম। তিনি উত্তর কোরিয়া বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কর্মকর্তা। উত্তর কোরিয়া দু’বছরের মধ্যে প্রথমবার পানির নিচে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাসহ বেশ কিছু ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে। তা নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর আজ রোববার ওই মন্তব্য করেছেন সাং কিম। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল জাজিরা।
যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে পারমাণবিক কর্মসূচি কেন্দ্রীক কূটনীতি দীর্ঘ সময় ধরে অচল অবস্থায় রয়েছে। এরই মধ্যে উত্তর কোরিয়া ওইসব অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার অফিসিয়াল নাম ডেমোক্রেটিক পিপলস রিপাবলিক অব কোরিয়া (ডিপিআরকে)। মার্কিন কূটনীতিক সাং কিম সরাসরি তাদের সেই নাম ধরে সাংবাদিকদের বলেছেন, আমরা এসব উস্কানি এবং অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারী কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে ডিপিআরকে’র প্রতি আহ্বান জানিয়েছি। বলেছি, এর পরবির্তে আলোচনায় যুক্ত হতে। তিনি আরো বলেন, কোনো পূর্বশর্ত ছাড়াই আমরা ডিপিআরকে’র সঙ্গে সাক্ষাতে বসতে প্রস্তুত। আমরা আরো পরিষ্কার করেছি যে, ডিপিআরকে’র সঙ্গে কোনো রকম শত্রুতা চায় না যুক্তরাষ্ট্র।
উল্লেখ্য, কয়েক সপ্তাহ ধরে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। গত মঙ্গলবার তারা পঞ্চম দফা এমন পরীক্ষা করে। এদিন তারা একটি সাবমেরিন থেকে নতুনভাবে তৈরি করা একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে। দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা বলেছেন, সাবমেরিন থেকে পরীক্ষা চালানো এই ক্ষেপণাস্ত্র দৃশ্যত প্রাথমিক অবস্থার। ২০১৯ সালের অক্টোবরের পর এটাই এ ধরনের প্রথম পরীক্ষা। সাবমেরিন থেকে কোনো ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হলে তা আগেভাগে শনাক্ত করা খুব কঠিন। সাং কিম বলেছেন, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ থেকে যে রেজ্যুলুশন দেয়া হয়েছে, এই অস্ত্রের পরীক্ষার মাধ্যমে উত্তর কোরিয়া তা বার বার লঙ্ঘন করেছে। এর মধ্য দিয়ে তারা তাদের প্রতিবেশীদের এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য হুমকি হয়ে উঠেছে। এ পরীক্ষাকে তিনি উদ্বেগজনক এবং কোরিয়ান দ্বীপাঞ্চলে টেকসই শান্তির প্রতি এক পাল্টা হুমকি হিসেবে অভিহিত করেছেন।
যুক্তরাষ্ট্র এ পর্যন্ত যেসব দাবি জানিয়ে আসছে, দৃশ্যত তা প্রত্যাখ্যান করেছে উত্তর কোরিয়া। তারা অভিযোগ করেছে, যখন উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার সেনাবাহিনীর কর্মকাণ্ড নিয়ে উত্তেজনা বৃদ্ধি পাচ্ছে, তখন কূটনৈতিক আলোচনায় যুক্ত ওয়াশিংটন ও সিউল। সাবমেরিন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র অতিমাত্রায় প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে বলে বৃহস্পতিবার অভিযোগ করেছে উত্তর কোরিয়া। তারা ওয়াশিংটনের আলোচনা প্রস্তাবের আন্তরিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর