× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার , ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

চীনে নতুন সীমান্ত আইন, ভারতের সঙ্গে বিরোধ বাড়ার ইঙ্গিত

ভারত

বিশেষ সংবাদদাতা     
(১ মাস আগে) অক্টোবর ২৫, ২০২১, সোমবার, ৯:১৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৫ অপরাহ্ন

চীন নতুন সীমান্ত আইন প্রণয়ন করেছে যা লাগু হবে ২০২২ সালের পয়লা জানুয়ারি। এই আইন যদিও বলা হয়েছে যে, চীনের নিজস্ব সীমান্তের নিরাপত্তা ও স্বাধিকার রক্ষার তাগিদে নেওয়া হচ্ছে, কিন্তু তথ্যাভিজ্ঞ মহল বলছে, নতুন আইন ভারত-চীন সীমান্ত বিরোধিতা আরও বাড়িয়ে তুলবে। এই আইনকে চীনের আগ্রাসী মানসিকতার ফসল বলেও বর্ণনা করা হচ্ছে। নতুন আইনের বলে নতুন ইংরেজি বছরের প্রথম দিনটি থেকে চীনের সীমান্তের যাবতীয় নিরাপত্তা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব দেওয়া হলো পিপলস লিবারেশন আর্মি ও পিপলস আর্মড পুলিশ ফোর্সের ওপর। এছাড়াও সীমান্ত বরাবর পরিকাঠামো উন্নয়ন ও পরিকাঠামো বৃদ্ধির ঢালাও সবুজ সংকেত দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে আছে এয়ারবেস, রেল লাইন নির্মাণও। চীনের সরকারি সংবাদসংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, যে চীনা পার্লামেন্টের সাফয়রা একমত হয়ে এই নতুন আইনে অনুমোদন দিয়েছেন। ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর এবং বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলাও মনে করছেন, চীনের এই নতুন আইন নতুন করে সীমান্ত সংঘর্ষ তৈরি করতে পারে। উল্লেখযোগ্য, ভারতের সঙ্গে চীনের সীমান্তের পরিধি তিন হাজার ৪৬৮ কিলোমিটার। ভুটানের সঙ্গে চীনের সীমান্ত ৪০০ কিলোমিটার। ভুটান তাদের সীমান্ত নিয়ে ১৪ অক্টোবর একটি মউ স্বাক্ষর করেছে চীনের সঙ্গে। নতুন আইন লাগু হওয়ার আগেই উত্তর লাদাখে এবং অরুণাচল প্রদেশ সীমান্তে চীনা সেনা সমাবেশ ভারতের মাথাব্যাথার কারণ হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর