× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

শিবচরে ২২ দিনে ২৮৭ জেলের কারাদণ্ড

বাংলারজমিন

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি
২৮ অক্টোবর ২০২১, বৃহস্পতিবার

প্রজনন মৌসুমে ইলিশ শিকার বন্ধের ২২ দিনে শিবচরের পদ্মা নদী থেকে আটক জেলেদের মধ্যে ২৮৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ সময় জরিমানা আদায় করা হয়েছে ১ লাখ ২৮ হাজার ৫শ টাকা।


নিষেধাজ্ঞা শেষে গত সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাত ১২টার পরে ইলিশ ধরতে পদ্মায় নামে জেলেরা।
উপজেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, ইলিশ শিকার বন্ধে শিবচরের পদ্মা নদীর বিভিন্ন স্থানে গত ২২ দিন প্রায় ২৪ ঘণ্টাই অভিযান চালায় প্রশাসন।


২২ দিনে মোট ৫৬টি অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয় ৩৪টি এবং মামলা দায়ের করা হয় ৮৮টি। এসময় ৩ দিন থেকে ১ বছর পর্যন্ত সাজা দেওয়া হয় ২৮৭ জনকে।

অভিযানের সময় কারেন্ট জাল ধ্বংস করা হয় ১৮.২২৯ লাখ মিটার। যার মূল্য ৩ কোটি ৭৯ লাখ ২৪ হাজার টাকা।
ইলিশ জব্দ করা হয় ৪০৬ কেজি, যা স্থানীয় এতিম খানায় বিতরণ করা হয়। অভিযানের সময় পদ্মা নদীর চরাঞ্চলে ইলিশ বিক্রির অবৈধ ১৫০টি অস্থায়ী স্থাপনা এবং গোপনে ধরা ইলিশ রাখার তিনটি আস্তানা উচ্ছেদ করে প্রশাসন। জব্দ করা হয় ৬টি মাছ ধরার ট্রলার।

উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ফেরদৌস ইবনে রহিম জানান, নিয়মিত অভিযানে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন, জেলা ও উপজেলা মৎস্য দপ্তর, উপজেলা পরিষদ, জেলা পুলিশ, র‍্যাব ৮, শিবচর থানা পুলিশ, নৌ-পুলিশ, কোস্টগার্ড ও গ্রাম পুলিশ সদস্যরা বিভিন্ন সময়ে অংশ নিয়েছেন।

শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামান জানান, 'আমরা মা ইলিশ রক্ষায় পদ্মা নদীতে সর্বাত্মক অভিযান পরিচালনা করেছি। জেলেদের নিষিদ্ধ সময়ে মাছ ধরতে বারণ করার পাশাপাশি সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করেছি। এরপরও কিছু অসাধু জেলেরা পদ্মায় মাছ শিকারে বের হয়েছিল তাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে।
'
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর