× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, বৃহস্পতিবার , ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১২ শাবান ১৪৪৫ হিঃ

বর্ণাঢ্য আয়োজনে লন্ডনে ১৫তম বিসিএ এওয়ার্ড অনুষ্ঠিত

অনলাইন

খালেদ মাসুদ রনি, ব্রিটেন থেকে
(২ বছর আগে) নভেম্বর ১০, ২০২১, বুধবার, ৩:২৫ অপরাহ্ন

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ব্রিটেনে বাংলাদেশি কারি ইন্ডাস্ট্রির বৃহত্তম সংগঠন বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন (বিসিএ) ডায়মন্ড জুবিলী সেলিব্রেশন এর সাথে ১৫তম বিসিএ এওয়ার্ড অনুষ্ঠিত হয়েছে। লন্ডনের বিখ্যাত ওটু ইন্টারকন্টিনেন্টাল হলে দেশটির মূলধারার রাজনীতিবিদ, কারি ইন্ডাস্টির নানা শাখার বিশিষ্টজন এবং সেলিব্রেটি পারসোনালিটিদের উপস্থিতিতে এওয়ার্ড প্রদান করা হয়। এ বছর রেস্টুরেন্ট অব দ্য ইয়ার, শেফ অফ দ্য ইয়ার ও অনার অফ দ্য ইয়ার-এই তিন ক্যাটাগরিতে বিসিএ পুরস্কার প্রদান করে। প্রায় ১২শ’ আমন্ত্রিত অতিথিদের নিয়ে রোববার সন্ধ্যা ৪টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত মুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে ব্রিটেনের সেলিব্রেটিরা অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশি কারি ইন্ডাস্ট্রির নানা স্বাদ ও পদের মৌলিক খাবার। প্রায় ১১,০০০ এরও অধিক ব্রিটিশ বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট এবং টেকওয়ে প্রতিনিধিত্বকারী শক্তিশালী সংগঠন বিসিএ -ব্রিটেনের অর্থনীতিতে বছরে প্রায় ৪.২ বিলিয়ন পাউন্ড অবদান রাখছে।

শুরুতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ১৫তম বিসিএ এওয়ার্ড অনুষ্ঠান উপলক্ষে দেয়া ভিডিও শুভেচ্ছা বার্তা প্রকাশ করা হয়। ব্রিটেনে কারি শিল্পের অস্কার রাত হিসাবে পরিচিত বিসিএ এওয়ার্ড অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের বিরোধীদলীয় নেতা স্যার কিয়ার স্টারমার এমপি।
বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মিনিস্টার ফর অল স্মোল বিজনেসেস, কনজুমার্স এন্ড লেবার মার্কেটস মিনিস্টার পল স্কলি এমপি, লর্ড করণ বিলিমারিয়া সিবিই, ডিএল, এফসিএ, লর্ড শেখ, লর্ড র্যামি র্যেনজার, স্যার স্টিফেন টিম এমপি, ব্রিটিশ বাংলাদেশী এমপি আফসানা বেগম, ব্রুথ ক্যাডবারি এমপি,রবার্ট হালফন এমপি, দাওন বাটলার এমপি, জেমস ম্যুরি এমপি, টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিলের মেয়র জন বিগস, স্পিকার কাউন্সিলার আহবাব হোসেন, এটিএন বাংলা নিউজের সিইও হাফিজ আলম চেধৈুরী। চ্যানেল এস এর ফাউন্ডার মাহি ফেরদৌস জলিল, এনটিভির সিইও সাবরিনা হোসেন।

বাংলাদেশীদের বন্ধু হিসাবে অবহিত করে ব্রিটিশ পালামেন্টের বিরোদলীয় নেতা স্যার কিয়ার স্টারমার,কোভিড সংকট কাঠিয়ে উঠতে ফ্রি বিজনেস রেইট, রেস্টুরেন্ট এর থ্রেশ হোল্ডকে আরও বর্ধিত করণের জোর দাবি জানান। করোনা পেনডামিকে ১০ শতাংশ রেস্টুরেন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে বলেন, আমাদের এখন প্রয়োজন-কোভিড সংকট কাটিয়ে উঠতে হসপিটালিটি সেক্টরকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা, যাতে করে এই সেক্টর আমাদের অর্থনীতিকে আরও সমৃদ্ধ করতে পারে।তিনি বলেন, আমার বিশ্বাস আগামীতে ব্রিটিশ-বাংলাদেশীরা ব্রিটেনের অর্থনীতি ও রাজনীতে লীডারশীপ অবস্থানে গিয়ে দেশের সেবা করবেন। তিনি ব্রিটেনের জাতীয় অর্থনীতিতে বাংলাদেশী কারি ইন্ডাস্ট্রির ৯০ হাজারের বেশি রেস্টুরেন্ট ওয়ার্কাদের অবদানকে কৃতজ্ঞতায় স্মরণ করে বিসিএ এওয়ার্ড বিজয়ীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন- ৬১ বছরে পা রাখা কারি ইন্ডাস্ট্রির লিডিং সংগঠনের এই এওয়ার্ড আগামীতে আরও উজ্জ্বলভাবে সেবা ও অনুপ্রেরণায় কাজ করবে বলে বিশ্বাস করি। স্যার কিয়ার স্টারমার ২০১৬ বাংলাদেশে সফরের কথা উল্লেখ কবে বলেন, বাংলাদেশ হচ্ছে আত্মীয়তা ও আন্তরিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত রাখা একটি সম্ভাবনাময় দেশ।

বিবিসির জনপ্রিয় নিউজ প্রেজেন্টার সামান্থা সায়মন্ড ও স্কাই স্পোর্টস প্রেজেন্টার গ্যারি নিউবন এর প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় এওয়ার্ড অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এওয়ার্ড অনুষ্ঠানের আহবায়ক জামাল উদ্দিন মকদ্দস। সংগঠনের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন- বিসিএর প্রেসিডেন্ট এম এ মুনিম, সেক্রেটারি জেনারেল মিটু চৌধুরী ও চিফ ট্রেজারার সাইদুর রহমান বিপুল।

১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত বিসিএ এর ধারাবাহিক কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে বক্তারা আরও বলেন, সাম্প্রতিক কোভিড-১৯ অতিমারীতে ব্রিটেনের হসপিটালিটি সেক্টর পার করেছে কঠিন সময়। বিসিএ এই দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশব্যাপী কমিউনিটির পাশে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর