× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২১, রবিবার , ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

‘আয়রনগ্রান’: ৭৮ বছরেও ছুটছেন আয়রনম্যান চ্যালেঞ্জ জয়ী এডউইনা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ দিন আগে) নভেম্বর ২৪, ২০২১, বুধবার, ৭:৫১ অপরাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: ১১:২০ পূর্বাহ্ন

৭৮ বছর বয়সী এডউইনা ব্রকলেসবির সঙ্গে একবার দেখা হলেই আপনি তাকে আর ভুলতে পারবেন না। তিনি সফলভাবে বিশ্বের সবথেকে কঠিন ট্রায়াথলন চ্যালেঞ্জ ‘আয়রনম্যান’ সম্পন্ন করেছেন। এজন্য তাকে ৩.৮ কিলোমিটার সাঁতরাতে হয়েছে, ১৮০ কিলোমিটার সাইকেল চালাতে হয়েছে এবং ৪২ কিলোমিটার ম্যারাথন সম্পন্ন করতে হয়েছে। এখন এডউইনা পরিচিত ‘আয়রনগ্রান’ হিসাবে। সিএনএনকে এই বৃটিশ বলেন, আমি এখন পর্যন্ত ১০ বার আয়রনম্যান চ্যালেঞ্জে অংশ নিয়েছি এবং ৬ বার সম্পন্ন করেছি। সম্ভব হলে আমি আরও একবার এই চ্যালেঞ্জে অংশ নিতে চাই।

যেখানে এই চ্যালেঞ্জ আয়োজিত হয় সেই ল্যাঞ্জারোট দ্বীপ এডউইনার প্রিয় স্থান। তিনি বলেন, এখানকার পানি একদম স্বচ্ছ।
যে রাস্তায় সাইকেল চালাতে হয় তা এই দ্বীপের সবথেকে সুন্দর অংশগুলো দিয়ে যায়। দৌড়ানোটা সবসময়ই মজার। ৭৮ বছর বয়স হলেও এডউইনা এখনই থামতে চান না। তিনি ২০২৩ সালের রেইস এক্রোস আমেরিকা বা আরএএএম প্রতিযোগিতার জন্যে এরইমধ্যে নাম লিখিয়েছেন। আরএএএম এ জাতীয় প্রতিযোগিতার মধ্যে বিশ্বের সবথেকে দীর্ঘ পথগুলোর একটি। সেখানে অংশগ্রহণকারীদের ৯ দিনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে যেতে হয়। এই দূরত্ব হচ্ছে ৪ হাজার ৮০০ কিলোমিটার। এই প্রতিযোগিতার সময় এডউইনার বয়স হবে ৮০ বছর।  এতে সফল হলে ইতিহাসের সবথেকে বেশি বয়সে আরএএএম জয়ী হবেন তিনি।
যদিও ৫০ বছরের পূর্বে এডউইনা কোনো ধরনের ক্রীড়ার সঙ্গেই যুক্ত ছিলেন না। ৫২ বছর বয়সে তিনি প্রথম হাফ ম্যারাথনে দৌড়ান। কয়েকটি ম্যারাথনের পর কিছু ইঞ্জুরি দেখা যায় তার। এরপর তিনি নিজের শরীরকে মানিয়ে নিতে শুরু করেন নতুন যাত্রার সঙ্গে। ৬০ বছর বয়সে গিয়ে সাঁতার শিখতে শুরু করেন তিনি। ট্রায়াথলনে তার সবথেকে প্রিয় হচ্ছে সাইক্লিং। সাঁতার এখনো তার জন্য সবথেকে বেশি চ্যালেঞ্জের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর