× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৮ নভেম্বর ২০২১, রবিবার , ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ভারতে অপরাধীদের নির্বাচনে প্রার্থী হতে আজীবন নিষেধ করা হবে না কেন, সরকারকে প্রশ্ন সুপ্রিম কোর্টের       

কলকাতা কথকতা

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা
(২ দিন আগে) নভেম্বর ২৫, ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ আপডেট: ১০:২৬ পূর্বাহ্ন

ভারতে একজন অপরাধী প্রমাণিত হলে এমনকি কনস্টেবলের চাকরিও তার জোটে না। অথচ দেশে অপরাধীরা নির্বাচনে জিতে মন্ত্রী হয়ে যাচ্ছে। কেন অপরাধীদের আজীবন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি হবে না জানতে চাইলো সুপ্রিম কোর্ট।  প্রধান বিচারপতি এনকে রামান্না, বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও সূর্যাকুমারকে নিয়ে গঠিত একটি বেঞ্চ অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল এস রাজুকে বলেছেন, ১৫ মাস হয়ে গেল আদালতের নির্দেশ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার নীরব। জনপ্রতিনিধিত্ব আইন বদলানোর কাজটা সরকারকেই করতে হবে। জাতীয় নির্বাচন কমিশনকে করতে হবে। অবিলম্বে এটা করা দরকার। আইনজীবী অশ্বিনের আনা জনস্বার্থের একটি মামলা প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট এই মন্তব্য করে।
অশ্বিন তার আবেদনে বলেছেন, নির্বাচনে লড়ার অধিকার নিয়ে কেউ কেউ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যন্ত হয়ে যাচ্ছেন। এটা বন্ধ হওয়া উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
২৪ নভেম্বর ২০২১, বুধবার, ১১:০৫

প্রশ্নটির গ্রহনযোগ্য সমাধান সারা বিশ্বের জন্য দৃষ্টান্ত হবে । অপরাধী চাকরি জীবনে প্রতিবন্ধকতার মোকাবিলা করলে রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা পায়, তা গ্রহণযোগ্য হতে পারে না । এমনকি বিজয়ী হলে বেপরোয় অপরাধ করে। তার বংশধর ও বেপরোয়া অপরাধে লিপ্ত হয়। সারা বিশ্বে এরকম রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতা চলছে। তাই অজস্র রাজনৈতিক খুনাখুনি হচ্ছে। ভারত সরকার সারা বিশ্বের জন্য দৃষ্টান্তমূলক সিদ্ধান্ত নিবে আশা করি।

অন্যান্য খবর