× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার , ৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

গঙ্গাচড়ায় ৫৮১ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল

বাংলারজমিন

গঙ্গাচড়া (রংপুর) প্রতিনিধি
২৮ নভেম্বর ২০২১, রবিবার

দেশে চতুর্থ দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী রংপুরের গঙ্গাচড়ায় গত ২৫শে নভেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল। শেষ দিন পর্যন্ত  উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে দুই নারীসহ চেয়ারম্যান পদে ৫৬ জন, সংরক্ষিত সদস্য পদে ১৩৪ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৩৯১ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এরমধ্যে আওয়ামী লীগের ৯ জন মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন ১০ জন, জাতীয় পার্টির ৮ জন মনোনীত প্রার্থীর বাইরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন ৩ জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের ৪ জন, ইসলামী আন্দোলনের ৭ জন, ওয়ার্কাস পার্টির ২ জন, জাসদের ১ জন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ১২ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। বেতগাড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাইমিন ইসলাম মারুফ, স্বতন্ত্র হিসেবে জেলা ছাত্রদলের সাবেক কোষাধ্যক্ষ বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান প্রামাণিক লিপ্টন, স্বতন্ত্র হিসেবে আক্তারুজ্জামান, রুহুল আমিন চৌধুরী। কোলকোন্দ ইউনিয়নে ৭ জনের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও বর্তমান চেয়ারম্যান সোহরাব আলী রাজু, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুর রউফ, ইসলামী আন্দোলনের আনিছুর রহমান, ওয়ার্কাস পার্টির বেলাল উদ্দিন। স্বতন্ত্র হিসেবে মেনোকা মাহাবুব সরকার, আব্দুল হালিম, জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মুনতাশীর মামুন। বড়বিল ইউনিয়নে ১৩ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শহীদ চৌধুরী দীপ, জাতীয় পার্টির মনোনীত উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও উপজেলা যুব সংহতির সাবেক সদস্য সচিব এবং ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী মিলন, ইসলামী আন্দোলনের আব্দুল বারি, ওয়ার্কাস পার্টির মাহমুদুল আলম। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক সিএম সাদিক, যুবদল থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করে পদ-পদবি না পাওয়া বর্তমান চেয়ারম্যান আফজালুল হক রাজু, উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি সোয়েব মো. ইকবাল, ইউনিয়ন জাপার সভাপতি মোখলেছুর রহমান, জাপা নেতা আব্দুল হাকিম।
স্বতন্ত্র প্রার্থী সামছুল হুদা, আব্দুল বাতেন, শরিফুল ইসলাম, গোলাম নবী। গঙ্গাচড়া ইউনিয়নে ৫ জনের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাজহারুল ইসলাম লেবু, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মাহফুজার রহমান দুলু। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান আল সুমন আব্দুল্লাহ, ইসলামী আন্দোলনের শরিফুল ইসলাম। লক্ষ্মীটারী ইউনিয়নের ৫ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জুয়েল রানা জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল্লা আল হাদী। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ওয়াহেদুজ্জামান মাবু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের ফজলু মিয়া। গজঘণ্টা ইউনিয়নে ৫ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি লিয়াকত আলী, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, ইসলামী আন্দোলনের মোরশেদুল ইসলাম। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আলী মো. আলমগীর, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য মাহবুবর রহমান। মর্নেয়া ইউনিয়নে ৫ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বর্তমান চেয়ারম্যান মোছাদ্দেক আলী, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, জাসদের মাহবুবুল আলম। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি রেজাউল কবির, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জিল্লুর রহমান। আলমবিদিতর ইউনিয়নে ৭ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হারুন অর রশিদ, জাতীয় পার্টির মনোনীত ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আফতাবুজ্জামান, ইসলামী আন্দোলনের জিল্লুর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জেলা বিএনপি যুগ্ম সম্পাদক  মোকাররম হোসেন সুজন, উপজেলা আওয়ামী কৃষক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক টিটুল মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারফ হোসেন। নোহালী ইউনিয়নের ৫ জন হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ টিটুল, জাতীয় পার্টির মনোনীত আশরাফ আলী। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মোসলেম উদ্দিন, নাজনীন আক্তার, ইসলামী আন্দোলনের আনছারুল ইসলাম। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ২৯শে নভেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাই ও ৬ই ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। প্রতীক বরাদ্দ ৭ই ডিসেম্বর এবং ২৩শে ডিসেম্বর ভোট অনুষ্ঠিত হবে। উপজেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা জানান, মনোনীত প্রার্থী ছাড়া যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তাদের এ মুহূর্তে বিদ্রোহী বলা যাচ্ছে না, কারণ মনোনয়ন প্রত্যাহারের সুযোগ আছে এবং দলের বাইরে কেউ যাবে না দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিবে। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বাইরে ১০ জন মনোনয়নপত্র দাখিলের বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম বলেন, দলীয় মনোনীত প্রার্থী ছাড়াও যারা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তাদের নিয়ে বসা হবে এবং আলোচনার মাধ্যমে তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে বলা হবে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর