× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার , ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

প্রতিশ্রুতি রাখলেন মরিনহো, ৮০ হাজার টাকা দামের জুতা উপহার পেলেন আফেনা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৮ নভেম্বর ২০২১, রবিবার

১৮ মাস আগেও তাকে খুব চিনতো না ফুটবল বিশ্ব। ছিল না তার নাম-ডাক। সেই ফেলিক্স আফেনা-জিয়ান এখন স্পেশালওয়ানখ্যাত কোচ হোসে মরিনহোর ‘স্পেশালওয়ান’ শিষ্য। এএস রোমার যুব দল থেকে সিনিয়র দলে যোগ দিয়ে আফেনা হয়ে উঠেছেন কোচ মরিনহোর চোখের তারা। আর গুরুর কাছ থেকে জিয়ান পেলেন প্রতিশ্রুত উপহার। প্রতিশ্রুতি অনুসারে প্রিয় শিষ্যকে মূল্যবান বুট কিনে দিয়েছেন মরিনহো। জুতা জোড়ার দাম প্রায় ৮০ হাজার টাকা।
গত ২৮শে অক্টোবর ইতালিয়ান সিরি আ ফুটবল লীগে ক্যালিয়ারির বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় পায় রোমা। সেই ম্যাচে রোমার জার্সিতে অভিষেক হয় ১৮ বছর বয়সী জিয়ানের।
শনিবার রাতে জেনোয়ার বিপক্ষেও মাঠে নামেন তিনি, ৭৫তম মিনিটে বদলি হিসেবে। আর জিয়ানের একক নৈপুণ্যেই শেষের ভেলকিতে ২-০ গোলের জয় পায় রোমা। ৮২তম মিনিটে দলকে এগিয়ে নিয়ে ডাগআউটে ছুটে যান জিয়ান, উদযাপন করেন কোচ মরিনহোর সঙ্গে। গুরুকে মনে করিয়ে দেন তার প্রতিশ্রুতির কথা। রোমার জার্সিতে এটি ছিল তার প্রথম গোল। এরপর যোগ করা সময়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জিয়ান।
তরুণ তুর্কীর প্রশংসা করে মরিনহো বলেন, ‘আমি তার শান্ত মনোভাব, ফিটনেস খুব পছন্দ করি। সবকিছুর ঊর্ধ্বে তার নম্রতা।’ জিয়ানকে জুতা উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মরিনহো। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি তাকে দামি জুতা কিনে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, যার দাম ৮০০ ইউরো।’ মরিনহো বলেন, ‘সে আমার কাছে জানতে চেয়েছিল যে, বিষয়টি আমি ভুলে গেছি কি না।’
মূল্যবান উপহার পেয়ে আপ্লুত আফেনা-জিয়ান। গুরু মরিনহোকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি আনন্দিত, মিস্টার মরিনহোর প্রতি কৃতজ্ঞতা।’ জিয়ান বলেন, ‘তিনি আমাকে অনেক কিছু শেখাচ্ছেন। ক্যারিয়ারে অনেক কিছু অর্জন করেছেন তিনি। মরিনহো একজন মহান ব্যক্তি। আমি তার সঙ্গে কাজ করতে পেরে গর্বিত।’ জেনোয়ার বিপক্ষে দারুণ পারফরম্যান্সের পর জিয়ান বলেন, ‘আজকের রাতের জন্য ঈশ্বরকে ধন্যবাদ। আমার গোলগুলো ক্লাব, সমর্থক এবং আমার পরিবারকে উৎসর্গ করছি, বিশেষত আমার মাকে। মা...আমাকে এতদূর পৌঁছে দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।’
ঘানার প্রত্যন্ত অঞ্চল ভিঞ্চিতে জন্ম ফেলিক্স আফেনা-জিয়ানের। নিজ শহরের ‘ বেরেকাম প্রেসেক’ নামক স্কুল থেকে ২০১৯ সালে মাধ্যমিক শেষ করেন। স্কুলটির ফুটবল দলে খেলতেন জিয়ান। স্থানীয় ‘মিলো চ্যাম্পিয়নশিপে’ একটি দলের অধিনায়কও ছিলেন তিনি। পরে দ্রুতই বদলে যায় দৃশ্যপট। আফেনা-জিয়ান শুরুতে ইতালির আরেক ক্লাব এসি মিলানে ট্রায়াল দেন। সেখানেই রোমা কর্তাদের নজরে পড়েন তিনি।  সম্ভাবনাময় তরুণকে তাদের যুব দলে টেনে নেয় রোমা। চলতি বছরের ১৩ই মার্চ রোমা যুব দলের হয়ে অভিষেক হয় জিয়ানের।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর