× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার , ৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

এম্বুলেন্স ফ্রি, ব্যক্তিগত কাজে বছরে ৩৯ বার কল, অতঃপর...

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(১ মাস আগে) নভেম্বর ২৮, ২০২১, রবিবার, ৩:৪২ অপরাহ্ন

সুপারমার্কেট থেকে বাসায় ফেরা বা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাইওয়ানের এক ব্যক্তি এক বছরে ৩৯ বার এম্বুলেন্স কল করেছেন। হাসপাতালটি তার ঘরের পাশেই অবস্থিত। তা সত্ত্বেও তিনি এম্বুলেন্স কল করেছেন। তার উদ্দেশ্য, চিকিৎসা নেয়া নয়- ফ্রি ট্যাক্সি ব্যবহার করা। ওয়াং নামের ওই ব্যক্তি সুপারমার্কেট থেকে বাসায় হেঁটে যেতে চাননি। এ জন্য আছে বিনা ভাড়ার সরকারি এম্বুলেন্স। তিনি সেটা ব্যবহার করতে কল করেছেন।

অথচ সুপারমার্কেট থেকে তার বাড়ির দূরত্ব মাত্র ২০০ মিটার।
চীনের গ্লোবাল টাইমসকে উদ্ধৃত করে এ খবর দিয়েছে ভারতের অনলাইন টাইমস নাউ। এতে বলা হয়েছে, ওয়াং নামের ওই ব্যক্তির পূর্বের রেকর্ড চেক করতে গিয়ে দেখা যায় তিনি এক বছরে এম্বুলেন্সে এমন কল করেছেন ৩৯ বার। প্রতিবারই তিনি অসুস্থ এমন ভান ধরতেন। এমন অজুহাত ধরে তাকে হাসপাতালে পৌঁছে দিতে বলতেন।

কিন্তু হাসপাতাল নোটিশ করে, তারা দেখতে পায়, তিনি কোনো চেকআপ বা ডাক্তার না দেখিয়েই প্রতিবার হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন। এতে বিস্মিত হয় কর্তৃপক্ষ। তার এমন আচরণ সম্পর্কে পুলিশকে জানান হাসপাতালের স্টাফরা। পুলিশ এ বিষয়ে তথ্যতালাশে গেলে তাদেরকে মৌখিক নির্যাতন চালান ওয়াং। কিন্তু পুলিশও তাকে সতর্ক করে আসে। জানায়, যদি তিনি ব্যক্তিগত সুবিধা আদায়ের জন্য সরকারি সম্পদ এভাবে আর একবার ব্যবহার করেন, তাহলে তাকে জরিমানা করা হবে।

উল্লেখ্য, তাইওয়ানে রোগীকে নিকটস্থ হাসপাতাল বা ক্লিনিকে জরুরি পরিবহনের জন্য বিনা ভাড়ায় এম্বুলেন্স সার্ভিস চালু আছে। এই সুবিধা এর আগেও এক ব্যক্তি ব্যক্তিগত উদ্দেশে ব্যবহার করেছেন। গত জুলাইয়ে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। তাতে দেখা যায়, স্ট্রেচারে করে নেয়া হচ্ছে এক ব্যক্তিকে। কিন্তু তিনি এম্বুলেন্সের ওই স্ট্রেচার থেকে লাফিয়ে নেমে দৌড়াতে থাকেন। এই ভিডিও তখন ভাইরাল হয়। পুলিশ মনে করে ওই ব্যক্তি মাদকাসক্ত ছিলেন। কিন্তু তিনি কেন এম্বুলেন্স থেকে দৌড় দিয়েছেন তার কারণ কেউ বলতে পারেন না।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর