× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

স্বাধীনতা কাপে জয়ে শুরু মোহামেডানের

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার

জয় দিয়ে স্বাধীনতা কাপের মিশন শুরু করেছে ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। গতকাল কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেসি’কে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারায় মতিঝিল ক্লাব পাড়ার দলটি।
টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে মাত্র এক বিদেশি নিয়ে মাঠে নামে মোহামেডান। মালির ফরোয়ার্ড সোলেমান দিয়াবাতে ছাড়া বাকি তিন বিদেশি এখনো ঢাকায় আসেনি। এছাড়া এ মৌসুমে যোগ দেয়া অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার মামুনুল ইসলাম নৌবাহিনীতে কর্মরত থাকায় পুরা টুর্নামেন্টেই তাকে পাওয়া যাবে না। এদিকে দুই জাপানিজ এবং এক গিনিয়ান ফুটবলার নিয়ে মাঠে নামে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। তিন বিদেশি কম নিয়েও কমলাপুরের টার্ফে ম্যাচের শুরু থেকেই গোল মিসের মহড়া দেখায় মোহামেডান। সহজ সুযোগগুলো গোলে পরিণত করতে পারলে বড় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারতো সাদা-কালোরা।
তারুণ্য নির্ভর দলের বড় ভরসা ছিলেন মালির ফরোয়ার্ড সোলেমান দিয়াবেতে। তাকে কেন্দ্র করেই আক্রমণ সাজায় শন লেনের দল। গোল মিসের শুরুটা হয়েছিল চতুর্থ মিনিটে, সহজ সুযোগ পেয়েছিল মোহামেডান কিন্তু ঠিকভাবে পাস দিতে না পারায় আক্রমণ ব্যর্থতায় রুপ নেয়। মাঝ মাঠের সামনে থেকে রাকিব খান ইভানের থ্রু বল নিজের নিয়ন্ত্রণে নেন অনিক হোসেন, কিন্তু বক্সের মধ্য থেকে তার দূর্বল শট নিজের আয়ত্ত্বে নেন মুক্তিযোদ্ধার গোলরক্ষক মামুন মিয়া।  ১৭তম মিনিটে প্রথম বারের মত আক্রমণে যায় মুক্তিযোদ্ধা, কর্ণার থেকে আসা বলে তারেক ঠিক মতো মাথা লাগাতে না পারলে বল পান ফাঁকা জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা মিডফিল্ডার শাকিল কিশোর, শট নিতে পারলেই পেতে পারতেন গোল কিন্তু বলেই পা ছোঁয়াতে পারেননি তিনি। এরপর ১৮, ২৬তম মিনিটে আরো দুই গোল মিস করে সাদা-কালো শিবির। তবে ৩৬তম মিনিটে কপাল খুলে মোহামেডানের। জাফর ইকবাল-দিয়াবেতের রসায়নে ম্যাচে এগিয়ে যায় তারা। মাঝ মাঠের খানিকটা সামনে থেকে বাম পায়ের বাঁকানো ক্রস থেকে পাওয়া বল বক্সের দিকে এগোতে থাকলে মুক্তিযোদ্ধার ডিফেন্ডার তারেক দিয়াবেতেকে আটকানোর চেস্টা করেও পারেনি। সেখানে বল পেয়ে ডান পায়ের প্লেসিং শটে দূরের পোস্টে লক্ষ্যভেদ করেন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান বাড়াতে পারতো মোহামেডান। বাম পাশ থেকে জাফর ইকবালের বাড়ানো বলে অরক্ষিত সাহেদ মিয়া পা ছোঁয়াতে পারেনি। তবে এই হতাশা বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে দেননি সাহেদ। ৫০তম মিনিটে বাপ্পির পাস থেকে বক্সে বল পান দিয়াবেতে। সেখান থেকে ফাকায় দাঁড়ানো সাহেদকে বল দিলে ডান পায়ের কোনাকুনি শটে দূরের পোস্টে লক্ষ্যভেদ করেন এই মিডফিল্ডার। ৭০তম মিনিটে এক গোল পরিশোধ করে মুক্তিযোদ্ধা। বাঁ দিক থেকে আক্রমণে যান জাপানিজ ওতাঞ্জো, বল নিয়ে বক্সের ভিতরে ঢুকে শট নিলে তা গোলরক্ষকের গায়ের লেগে উপরে উঠে গেলে সহজেই হেডে বল জালে জড়ান আরেক জাপানিজ তেটসুয়াকি মিসুয়া। শেষ দিকে মোহামেডানের উপর চড়াও হয়ে খেলে মুক্তিযোদ্ধা। ৮২তম মিনিটে বক্সে মোহামেডানের রাজীব হোসেনের হাতে বল লাগলেও জোরালো আবেদন করেনি মুক্তিযোদ্ধা। তাদের একজন খেলোয়াড়কে কেবল দেখা যায় ইশারায় হ্যান্ডবল দেখাতে। রেফারি জালাল উদ্দিনও সাড়া দেননি। গত মৌসুমে নিজেদের শেষ ম্যাচে এই মোহামেডানের কাছে হেরেছিল মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর