× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার , ১৪ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

লজ্জার রেকর্ডে ইনজামামদের ছাড়িয়ে আজহার আলী

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
২৯ নভেম্বর ২০২১, সোমবার

অভিষিক্ত আব্দুল্লাহ শফিককে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে বাংলাদেশকে প্রথম সফলতা এনে দেন তাইজুলের ইসলাম। পরের বলেই আবারও লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে ‘গোল্ডেন ডাক’ এর তিক্ত স্বাদ নিয়ে মাঠ ছাড়েন আজহার আলী। ৮৯ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে ১৬৬ ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে এ নিয়ে ১৮ বার ‘শূন্য’ রানে আউট হলেন আজহার আলী, যা ১ থেকে ৭ নম্বরে ব্যাট করা পাকিস্তানি ব্যাটারদের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। তবে ইনিংস প্রতি ‘ডাক’ মারার গড়ে বাকি সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন পাকিস্তানের সাবেক এই টেস্ট অধিনায়ক। লাল বলের ক্রিকেটে ‘০’ রানে আউট হওয়ার গড় বিবেচনায় এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রতি ৯.৩ ইনিংসে একবার করে ‘ডাক’ মেরেছেন ৩৬ বছর বয়সী ডানহাতি এই ব্যাটার। টেস্টে ১ থেকে ৭ নম্বরে ব্যাট করা পাকিস্তানি ব্যাটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৯ বার ডাক মেরেছেন দেশটির কিংবদন্তি ব্যাটার ইউনুস খান। যেখানে ইনিংস প্রতি তার শূন্য রানে আউট হওয়ার গড় ১১.২।  এছাড়া ইনজামাম উল হক ১৪ বার, আসাদ শফিক ১৩ বার এবং মোহাম্মদ ইউসুফ ১১ বার শূন্য রানে আউট হয়ে লজ্জার এই রেকর্ডের শীর্ষ পাঁচে রয়েছেন। প্রসঙ্গত টেস্টের এক ইনিংসে সেঞ্চুরি এবং অন্য ইনিংসে ডাক মারার রেকর্ডও আছে আজহার আলীর।
২০১৯ সালে করাচিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে শূন্য রান আউট হওয়ার পর, দ্বিতীয় ইনিংসে ১১৮ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর