× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার , ১৪ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ঝুলে আছে সাকিবের ঢাকা টেস্ট ভাগ্য

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে
৩০ নভেম্বর ২০২১, মঙ্গলবার

পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টের আগেই ঢাকায় আসেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু খেলেননি চট্টগ্রাম টেস্টে। এবার সিরিজের শেষ টেস্ট খেলতে পারবেন কিনা তানিয়ে রয়েছে যথেষ্ট সন্দেহ। সঙ্গে থাকতে পারে নাটকীয়তাও। ইনজুরির কারণে টি- টোয়েন্টি বিশ্বাকাপ থেকে ছিটকে পড়েছিলেন সাকিব। তাই টেস্টে সিরিজের আগে তার ফিটনেস পরীক্ষা ছিল বাধ্যতামূলক।  সেটা তিনি দিয়েছেন ঢাকা ফিরেই। তবে তার ফল জানা যায়নি। টিম ম্যানেজমেন্টকে রিপোর্ট পাঠিয়েছে মেডিকেল বিভাগ।
জানা গেছে, এখন সাকিব খেলতে পারবেন কিনা সেই সিদ্ধান্ত নিবেন ম্যানেজমেন্ট ও সাকিব নিজেই। বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের ফিটনেস টেস্ট রিপোর্ট এতটাই গোপন যে, তা নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরী। দৈনিক মানবজমিনকে তিনি বলেন, ‘আজ (গতকাল) আমরা সাকিবের একটি ফিটনেস টেস্ট নিয়েছি। আমাদের জন্য যে নিদের্শ ছিল সেটির কাজ আমরা করেছি। রিপোর্টটাও পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে। এটি অত্যন্ত কনফিডেন্টশিয়াল বিষয়। তাই আমাদের পক্ষে তা প্রকাশ করা সম্ভব নয়। আমাদের কাজ ছিল রিপোর্ট দেয়া, দিয়েছি। এবার টিম ম্যানেজমেন্ট ও সাকিব মিলেই সিদ্ধান্ত নিবেন।’ তবে নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন জানিয়েছেন এখনো তারা সাকিবের রিপোর্ট  হাতে পাননি।
জানা গেছে, সাকিব ঢাকা এসেছেন লম্বা সময়ের জন্য বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে কাজ করতে। তিনি দেশে আসেন ২২শে নভেম্বর। তার দু’দিন পর থেকে তাকে দেখা যাচ্ছে তিনি নানা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। বিশেষ করেয়কটি সূত্র থেকে জানা গেছে, তার এই ব্যস্ততা চলবে ১২ই ডিসেম্বর পর্যন্ত। সাকিবের রিপোর্ট নিয়ে নির্বাচক হাবিবুল বাশার বলেন, ‘সাকিব ফিটনেস টেস্ট দিয়েছে। তবে তার রিপোর্টে কি আছে তা এখনই বলতে পারছি না। হাতে পেলে আলাচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবো, তিনি ঢাকা টেস্টে খেলবেন কিনা।’ গতকাল বিসিবি’র ট্রেইনার তুষার কান্তি হাওলাদারের তত্ত্বাবধানে ফিটনেস টেস্ট দিয়েছেন সাকিব। তার এই টেস্ট নিয়ে তুষার বলেন, ‘আমাকে বলা হয়েছে সাকিব ফিটনেস টেস্ট দেবে। আমি সেটি নিয়েছি। বিসিবি’র প্রধান চিকিৎসব দেবাশিষ চৌধুরী একটা গাইড লাইন দিয়েছেন সেই ভাবেই আমরা টেস্ট করিয়েছি। এখন তার অবস্থা নিয়ে মেডিকেল বিভাগই বলতে পারবে। আমাদের বলার এখতিয়ার নেই।’ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় হ্যামস্ট্রিং চোট পান সাকিব। সুপার টুয়েলভ পর্বে তিন ম্যাচ না খেলেই তিনি ফিরে যান পরিবারের সঙ্গে সময় কাটি যুক্তরাষ্ট্রে। পাকিস্তানের বিপক্ষে টি- টোয়েন্টি সিরিজেও দলে ছিলেন না সাকিব। টেস্ট সিরিজ শুরুর আগেই ২২শে নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরে আসেন। তবে চোট পুরোপুরি সেরে না ওঠায় তাকে ছাড়াই চট্টগ্রাম টেস্ট খেলতে নামে বাংলাদেশ। আগামী ৪ঠা ডিসেম্বর থেকে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে ঢাকায়। এই ম্যাচকে সামনে রেখে সাকিবের অপেক্ষায় বাংলাদেশ ক্রিকেট।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর