× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার , ৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

পেং শুয়াইয়ের ঘটনায় চীনে সব টুর্নামেন্ট বাতিল

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
৩ ডিসেম্বর ২০২১, শুক্রবার

গত মাসের শুরুতে পেং শুয়াই চীনের এক প্রতাপশালী নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। এরপর থেকেই সাবেক গ্র্যান্ড স্লাম জয়ী টেনিস তারকা নিখোঁজ রয়েছেন। দেখা যায়নি তাকে প্রকাশ্যে। তার নিরুদ্দেশ হওয়ার ঘটনা এবং নিরাপত্তা সংক্রান্ত জটিলতা কাটেনি এখনো। যে কারণে চীনে সব ধরনের টুর্নামেন্ট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওমেন্স টেনিস অ্যাসোসিয়েশন (ডব্লিউটিএ)।
এখনও ২০২২ সালের টেনিস ক্যালেন্ডার ঘোষণা করা হয়নি। তবে পেংয়ের ঘটনার জেরে চীনে সব ধরনের টেনিস প্রতিযোগিতা বাতিল করা হয়েছে। গতকাল (১লা ডিসেম্বর) এক বিবৃতিতে ডব্লিউটিএ-এর চেয়ারম্যান স্টিভ সিমন বলেন, ‘জ্ঞাতসারে কোনোক্রমেই আমরা অ্যাথলেটদের সেখানে গিয়ে টুর্নামেন্টে অংশ গ্রহণ করতে দিতে পারি না। বিশেষ করে যেখানে পেং শুয়াইকে নিজের স্বাধীনভাবে সবার সঙ্গে যোগাযোগ করতে দেয়া হচ্ছে না।
এমনকি তার আনা যৌন হেনস্থার অভিযোগ থেকে সরে আসতে চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ২০২২ সালে চীনে টুর্নামেন্ট আয়োজিত হলে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত আমরা।’
গত ২রা নভেম্বর চীনের সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী ঝ্যাং গাওলির বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তোলেন টেনিস তারকা পেং শুয়াই। এরপর থেকে জনসম্মুখে দেখা যায়নি চীনের টেনিস কন্যাকে। চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত সম্প্রচারমাধ্যমে পেংয়ের লেখা দাবি করে একটি ই-মেইল প্রকাশিত হয়। স্টিভ সিমনকে পাঠানো ই-মেইলটি গত ১৭ই নভেম্বর চীনা সংবাদমাধ্যম সিজিটিএন প্রকাশ করে। সেখানে দাবি করা হয়, ই-মেইলটি পেং শুয়াইয়ের লেখা। তিনি নিখোঁজ কিংবা অনিরাপদ নন। চিঠিতে লেখা ছিল, ‘আমি বাড়িতে বিশ্রাম নিচ্ছি এবং সবকিছু ঠিক আছে।’
ই-মেইলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশটি হলো, সেখানে লেখা আছে, পেং শুয়াই ঝ্যাং গাওলির বিরুদ্ধে যে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ তুলেছেন, সেটা মিথ্যা।
ই-মেইলটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন ডব্লিউটিএ-এর প্রধান স্টিভ সিমন। তিনি বলেছিলেন, ‘আমার বিশ্বাস করতে কষ্ট হচ্ছে, আমরা যে ই-মেইল পেয়েছি সেটা প্রকৃতপক্ষে পেং সুয়াই লিখেছেন। তিনি যে নিরাপদ, ডব্লিউটিএ ও বাকি বিশ্বকে তার স্বাধীন এবং যাচাইযোগ্য প্রমাণ দিতে হবে।’ এরপর ২১শে নভেম্বর চীনের সরকারি প্রচারমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস পেং শুয়াইকে নিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। যেখানে দেখা যায় চীনের ফিলা কিডস জুনিয়র টেনিস প্রতিযোগিতার ফাইনালে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শুয়াই।
এরপর আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট টমাস বাখ-এর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন পেং। বাখ জানান, নিরাপদে এবং সুস্থ আছেন পেং। তবে ডব্লিউটিএ-এর প্রধান নির্বাহী সিমনের গলায় শোনা যায় অন্য সুর। অনেক চেষ্টা করেও তিনি পেং শুয়াই পর্যন্ত পৌঁছতে পারেননি বলে জানান। তিনি বলেছিলেন, ‘পেং শুয়াইয়ের সঙ্গে বিভিন্নভাবে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। তবে সে দুটি মেইল করেছে আমাদের। তাতেও পেংয়ের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে আমাদের। কোনো সন্দেহ নেই যে, তার ওপর নজরদারি করা হচ্ছে। ডব্লিউটিএ চায় সে আমাদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলুক।’
টেনিস ক্যারিয়ারে পেং শুয়াই দুবার উইমেন ডাবলসে গ্র্যান্ডস্লাম শিরোপা জিতেছেন। প্রথমবার ২০১৩ সালের উইম্বলডনে, পরেরটি ২০১৪ সালে ফ্রান্সের রোলাঁ গ্যারোয়।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর