× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার , ৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

আগামীদিনে গেমচেঞ্জার হতে পারে 'মাশরুম লেদার'

অনলাইন

মানবজমিন ডিজিটাল
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ৪, ২০২১, শনিবার, ৪:১৫ অপরাহ্ন

‘ব্যাঙের ছাতা’ বদলে দিতে পারে ফ্যাশন দুনিয়া থেকে দৈনন্দিন জীবন। অন্তত এমনটাই অভিমত এক মার্কিন সংস্থার। ফ্যাশনের সংজ্ঞা বদলে দিতে পারে - "মাশরুম চামড়া"-র হ্যান্ডব্যাগ। এটি নিয়ে গবেষণা করা বিজ্ঞানীরা বিশ্বাস করেন যে, মাইসেলিয়াম নামক ছত্রাক থেকে উৎপন্ন একটি উপাদান যাকে বাছুরের চামড়া বা ভেড়ার চামড়ার মতো দেখতে তা চামড়ার জন্য যথেচ্ছ প্রাণীহত্যা কমিয়ে আমাদের গ্রহকে বাঁচাতে পারে। 

অক্সফোর্ডশায়ারে বিজনেস অফ ফ্যাশন ভয়েসেস কনফারেন্সে বক্তৃতার আগে গার্ডিয়ানের সাথে কথা বলার সময়, বায়োমেটেরিয়াল কোম্পানি মাইকোওয়ার্কসের সিইও ডঃ ম্যাট স্কুলিন ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যে, মাশরুম চামড়া একটি টেকসই গেমচেঞ্জার হতে পারে। ফাইন মাইসেলিয়াম, একটি পেটেন্ট উপাদান যা ট্রেতে ছত্রাক থেকে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে উত্থিত হতে পারে, এটির স্থায়িত্ব এবং গুনাগুন চামড়ার প্রতিরূপ। এই বিশেষ উপাদানটি সম্প্রতি হার্মিস হ্যান্ডব্যাগ হিসাবে উচ্চ ফ্যাশন দুনিয়ায় আত্মপ্রকাশ করেছে। স্কুলিন বলেছেন, “এটিকে হাতে নিয়ে দেখলে প্রাণীর চামড়ার মতোই অনুরূপ অনুভূতি হবে, মনে হবে না এটি আসলে কৃত্রিম চামড়া। '' সীমিত প্রাকৃতিক সম্পদের এই গ্রহে, স্কুলিন বিশ্বাস করেন যে, প্রযুক্তি এবং কার্বন-নিরপেক্ষ মাশরুম চামড়ার ব্যবহার মানসিকতা বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটাতে পারে।
অক্সফোর্ডশায়ারে ফ্যাশন সম্মেলনে স্কুলিনের পাশাপাশি ছিলেন জীববিজ্ঞানী মারলিন শেলড্রেক। শেলড্রেক জানাচ্ছেন , ভিভিয়েন ওয়েস্টউড এবং টমি হিলফিগারের ডিজাইনারদের সঙ্গে কথা বলে তিনি চামড়ার দুনিয়ায় ছত্রাকের সম্ভাবনাগুলি তুলে ধরতে চান , যাতে তাঁরাও প্রচলিত ধ্যান ধারণা থেকে বেরিয়ে নতুন কিছু ভাবতে পারেন। ফ্যাশন বিশ্বকে আরও আকর্ষণীয় করার ক্ষেত্রে ছত্রাকের যে ক্ষমতা রয়েছে তা বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে মরিয়া জীববিজ্ঞানী মারলিন শেলড্রেক। চর্ম শিল্পের প্রয়োজনে পশু হত্যা নিয়ে পশুপ্রেমীদের আপত্তি দীর্ঘ দিনের। আবার জীব বৈচিত্র্য ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় তাঁদের এই দাবি খুব একটা অসঙ্গতও নয়। তাই পশুর বদলে যদি ছত্রাক ব্যবহার করে একই ফল মেলে তা হলে তার সুফল হতে পারে বহুবিধ। বিশেষজ্ঞদের দাবি, বুননে তো বটেই, এমনকি স্থায়িত্বের নিরিখেও সাধারণ চামড়াকে টেক্কা দিয়ে অনেক বেশি টেকসই হবে এই ‘মাইসেলিয়াম চামড়া’। গবেষকদের আরও দাবি, এই চামড়া ভবিষ্যতে কমিয়ে দেবে কৃত্রিম তন্তু ও প্লাস্টিকজাত দ্রব্যের ব্যবহার। ফলে প্লাস্টিক ঘটিত পরিবেশ দূষণ থেকে অনেকটাই রক্ষা পাবে বিশ্ব। পাশাপাশি চর্ম শিল্পের আরেকটি কু-প্রভাব হল বায়ুদূষণ। এই ছত্রাকজাত চামড়ার উৎপাদন নির্মূল করবে সেই সম্ভাবনাও। এই কৃত্রিম চামড়ার ব্যবহারের বিষয়ে গ্রাহকদের সচেতন করতে ইতিমধ্যেই নানা রকম প্রশিক্ষণ মূলক শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। মাশরুম চামড়া খুব একটা চটকদার নাও হতে পারে, তবে ছত্রাক-ভিত্তিক এই চামড়া একটি একচেটিয়া উপাদানে পরিণত হয়েছে, যা হাই-ফ্যাশন ডিজাইন স্টুডিওগুলির দ্বারা ইতিমধ্যেই পছন্দের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে। কিন্তু স্থায়িত্বের উপর যথেষ্ট প্রভাব ফেলতে, উপাদানটিকে কম দামে অ্যাক্সেসযোগ্য হতে হবে তবেই বিলাসবহুল ফ্যাশন দুনিয়ায় নিজের আলাদা জায়গা তৈরী করে নিতে পারবে মাশরুম চামড়া।

সূত্র : দা গার্ডিয়ান
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর