× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৬ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ঢাকা টেস্টেও তাইজুলের আলো

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার

দেশের মাটিতেও বাংলাদেশ দলের ত্রাহী অবস্থা। দল জয় পাচ্ছে না, তার ওপর ভেতরে-বাইরে নানা কোন্দলের গুঞ্জন। ঢাকা টেস্টে একাদশে পরিবর্তন নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় গতকাল মাঠে নামে মুমিনুল হক সৌরভের দল। তবে টসে হেরে পাকিস্তানের বিপক্ষে বল হাতে দিন শুরু হয় টাইগারদের। তবে পুরো দিন খেলা হলো না হঠাৎ বৃষ্টির হানা ও আলোকস্বল্পতায়। বলার অপেক্ষা রাখে না  বাংলাদেশের জন্য ম্যাড়ম্যাড়ে একটি দিন। আলোকস্বল্পতার জন্য শেষ সেশনে মাঠে গড়ায়নি এক বলও। ৬০ রানে পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম ও ৩৬ রানে আজহার আলী অপরাজিত থেকেই শেষ করেন ম্যাচের প্রথম দিনের খেলা।
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে প্রথম দিনে খেলা হয় মোটে ৫৭ ওভার। আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হওয়ার কথা আগেভাগেই। মিরপুরের আকাশে গতকাল সকাল থেকেই ছিল মেঘের আনাগোনা, নেমেছে বৃষ্টিও। তবে চা বিরতির পর আলো কমে যাওয়ায় আর খেলা শুরু করা যায়নি। অন ফিল্ড আম্পায়ার পর্যবেক্ষণ করে জানান যে আলো তাতে খেলা চালিয়ে যাওয়া যাবে না। আজ খেলা শুরু হবে ১০ টার পরিবর্তে সকাল সাড়ে ৯ টায়। পর্যাপ্ত আলো থাকা সাপেক্ষে আজ খেলা হবে মোট ৯৮ ওভার। তবে এমন আলোহীন দিনে টাইগারদের ঘরে নিজের আলো ছড়িয়ে রেখেছেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। এ দিন বল হাতে একাই তার  শিকার দুই উইকেট। বাকিরা উইকেটের মুখ দেখেননি।
টসে হেরে আগে বোলিং করা বাংলাদেশ পেসারদের ধার দেখা যায়নি। মিরপুরের মেঘাচ্ছন্ন আকাশের নিচে নতুন বলে উইকেট তুলে নিতে পারেননি বাংলাদেশ একাদশে থাকা দুই পেসার ইবাদত হোসেন ও খালেদ আহমেদ। আবিদ আলী ও আব্দুল্লাহ শফিকের ৫৯ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন তাইজুল ইসলাম। ২৫ রান করা আব্দুল্লাহ শফিক বোল্ড হয়ে ফেরেন সাজঘরে। শফিক অবশ্য সাজঘরে তার উদ্বোধনী সঙ্গী আবিদ আলীর সঙ্গছাড়া বেশিক্ষণ থাকেননি। ৩৯ বল বাদেই তাইজুলের দ্বিতীয় শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন আবিদ। ৩৯ রান করে বোল্ড হন তিনি। ২ উইকেটে ৭৮ রান নিয়ে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যায় পাকিস্তান। ৬ রান করে আজহার আলী, ৮ রান করে বাবর আজম অপরাজিত ছিলেন। এরপর দুজন তেমন সুযোগ দেননি বললেই চলে। বাংলাদেশের বোলাররা তাই উইকেটের খোঁজে হাতড়ে ফিরেছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়ে বাংলাদেশের মাটিতে পা রেখে দুর্বিষহ এক সফর কাটছিল বাবরের। তবে সফরের শেষ ম্যাচে ফিরেছেন রানে। ফিফটি তুলে নেয়ার পাশাপাশি ছিলেন দারুণ ছন্দে।
নিজেই অবশ্য একবার সুযোগ দিয়েছিলেন বাবর। সাকিব আল হাসানের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন পাকিস্তান অধিনায়ক। লং অফে প্রাণান্তকর চেষ্টা করেও ক্যাচ নিতে পারেননি খালেদ আহমেদ। চা বিরতির আগে আর সুযোগ দেননি বাবর, বাংলাদেশও সেরকম সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। ২ উইকেটে ১৬১ রান নিয়ে চা বিরতিতে যান বাবর ও আজহার। ৯৯ বলে ৬০ রান করে অপরাজিত বাবর, ১১২ বল খেলে ৩৬ রান করে অপরাজিত আজহার।
টাইগারদের হয়ে সারা দিনে উইকেটের দেখা পেয়েছেন কেবল তাইজুল ইসলাম। সেটিও প্রথম সেশনে। ইতোমধ্যে অবশ্য দুটি রিভিউও নষ্ট হয়েছে স্বাগতিকদের। প্রথম সেশনে তাইজুলের স্পিনের প্রদর্শনীর ধারাবাহিকতার ফায়দা বাংলাদেশ লুটতে পারেনি দ্বিতীয় সেশনে। তবে দুই সেশন খেলা হওয়ায় ম্যাচ যে বাংলাদেশের নাগালের বাইরে চলে গিয়েছে তাও বলা যায় না। দ্বিতীয় দিনে তাইজুল হয়তো চাইবেন প্রথম দিনের প্রথম সেশনের মতোই কিছু করতে। চট্টগ্রাম টেস্টে হারের পর সিরিজের সমতা ফেরাতে মরিয়া বাংলাদেশ। তাই ঢাকা টেস্টে একাদশে পরিবর্তন নিশ্চিত  ছিল। ব্যর্থ ওপেনার সাইফ হাসানের পরিবর্তে মাহমুদুল হাসানের অভিষেক হয়েছে গতকাল। আর চট্টগ্রাম টেস্টে বল হাতে ব্যর্থ আবু জায়েদ চৌধুরী রাহীর পরিবর্তে একাদশে জায়গা করে নেন অপর পেসার খালেদ আহমেদ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর