× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার , ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

প্রস্তুতি নেয়ার পরামর্শ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার / ৪০ দেশে ওমিক্রন

প্রথম পাতা

মানবজমিন ডেস্ক
৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার

বিশ্বের ৪০টি দেশে শনাক্ত হয়েছে কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন। এর বিরুদ্ধে প্রচলিত ভ্যাকসিনগুলো কাজ করবে না বলেই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। একইসঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকায় কোভিডের উচ্চ সংক্রমণের জন্যও দায়ী করা হচ্ছে এই ভ্যারিয়েন্টটিকে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এটিই কোভিডের সব থেকে বেশি মাত্রায় সংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট। তবে ওমিক্রন নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে বরঞ্চ প্রস্তুতি নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। শুক্রবার এর শীর্ষ বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথান এক সংবাদ সম্মেলনে এমন আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এক বছর আগের চেয়ে পরিস্থিতি এখন অনেক ভিন্ন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

তাছাড়া এই ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে যেসব আশঙ্কা রয়েছে তা এখনো প্রমাণিত নয়। এ বিষয়ে তথ্য দিতে বিজ্ঞানীরা দু’সপ্তাহের মতো সময় চেয়েছেন। এ অবস্থায় ড. সৌম্য স্বামীনাথান দক্ষিণ আফ্রিকার ডাটার দিকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, এই ভ্যারিয়েন্ট উচ্চ মাত্রায় সংক্রামক। এমনও হতে পারে যে, বিশ্বজুড়ে প্রাধান্য বিস্তার করতে পারে এই ভ্যারিয়েন্ট। তবে এ বিষয়ে পূর্বাভাস দেয়া কঠিন। বর্তমান বিশ্বে যে পরিমাণ মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তার মধ্যে শতকরা ৯৯ ভাগই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট।
ড. সৌম্য স্বামীনাথান বলেন, আমাদের কতোটা উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত? এ প্রশ্নের উত্তরে বলতে হয়- আতঙ্কিত নয়, আমাদের উচিত প্রস্তুতি ও পূর্ব সতর্কতা অবলম্বন করা। অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইমার্জেন্সি বিষয়ক পরিচালক মাইক রায়ান বলেছেন, কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে উচ্চ মাত্রায় কার্যকর টিকা বর্তমানে বিশ্বে আছে। এখন দৃষ্টি দিতে হবে তা আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেয়ার দিকে। ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের ক্ষেত্রে এই টিকা দেয়ার নীতি পরিবর্তনের কোনো প্রয়োজন নেই এখনো।
ওদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়া ভ্যারিয়েন্টের কারণে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে যেকোনো বিদেশির সফরের ক্ষেত্রে ভ্রমণ শুরুর সর্বোচ্চ একদিন আগে করোনা পরীক্ষা করার বাধ্যবাধকতা দিয়েছেন কর্মকর্তারা। ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের কারণে কর্তৃপক্ষ যুক্তরাষ্ট্রে যে বিধিনিষেধ দিয়েছে ভ্রমণের ক্ষেত্রে এই নির্দেশনা তারই অংশ।
এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের কমপক্ষে ৬টি রাজ্যে শনাক্ত হয়েছে ওমিক্রন। এর মধ্যে হাওয়াইতে যাদের শরীরে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে তাদের সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশ সফরের ইতিহাস নেই। ভারতে ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন দু’জন। কর্তৃপক্ষ বলেছে, তাদের একজন ৬৬ বছর বয়স্ক। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার নাগরিক। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে তিনি সফরে এসেছিলেন। এরই মধ্যে তিনি ভারত ত্যাগ করেছেন। অন্যজন দক্ষিণের রাজ্য ব্যাঙ্গালুরুর ৪৬ বছর বয়সী একজন চিকিৎসক। বিদেশ সফরের কোনো সাম্প্রতিক ইতিহাস নেই তার।
এ বছর এপ্রিল, মে মাসে ভারতে দ্বিতীয় ঢেউ সংক্রমণ দেখা দেয়। তখন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভয়াবহভাবে ভেঙে পড়ে। হাসপাতালগুলোতে বেড, অক্সিজেন ও ওষুধের তীব্র সংকট দেখা দেয়। মানুষ বেড না পেয়ে হাসপাতালের বাইরে গাড়িতে, তাঁবুতে অবস্থান নিয়ে চিকিৎসা নিতে থাকেন। ওদিকে ইউরোপেও দেখা দিয়েছিল মারাত্মক সংক্রমণ। এবারো ইউরোপের অনেক দেশে সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। ক্রমশ বাড়ছে তা। তার মধ্যে ওমিক্রন এসে চোখ রাঙাচ্ছে।
যারা টিকা নেননি তাদের বিরুদ্ধে বড় রকমের বিধিনিষেধ বৃহস্পতিবার ঘোষণা করেছে জার্মানি। বলা হয়েছে, যারা পূর্ণ ডোজ টিকা নিয়েছেন অথবা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছেন, শুধু তারাই রেস্তরাঁ, সিনেমা এবং শপিংয়ে যেতে পারবেন। চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল বলেছেন, ফেব্রুয়ারির মধ্যে টিকা নেয়া বাধ্যতামূলক করা হবে। প্রতিবেশী অস্ট্রিয়া ১লা ফেব্রুয়ারি থেকে টিকা নেয়া বাধ্যতামূলক করেছে অধিবাসীদের জন্য।  
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর