× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ৮ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

ন্যু-ক্যাম্পে বেতিসের বার্সা বধ

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
৫ ডিসেম্বর ২০২১, রবিবার

‘কোচ বদলালেই রাতারাতি দল পরিবর্তন সম্ভব নয়।’- রোনাল্ড কোম্যানের চাকরি হারানোর গুঞ্জনে কথাগুলো বলেছিলেন বার্সেলোনার ইয়ং স্টার ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং। ডাচম্যান কোম্যানের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন জাভি হার্নান্দেজ। দলের সামগ্রিক রূপ বদলাতে চেষ্টার কমতি রাখছেন না ব্লাউগ্রানাদের সাবেক কিংবদন্তি খেলোয়াড়। জাভির অধীনে চেহারা ঠিক কতটুকু পাল্টেছে বার্সেলোনার? নাকি ডি ইয়ংয়ের কথাই সত্যি? রাতারাতি দল পাল্টানো যে সম্ভব না তারই প্রমাণ দিলো শনিবারের রাত। স্প্যানিশ লা লিগায় ফের হারের স্বাদ পেলো কাতালানরা। এবার ঘরের মাঠে রিয়াল বেতিসের কাছে, ১-০ গোলে।

কোচ জাভি দায়িত্ব নেয়ার পর লিগে টানা দুই জয়ে ভালো কিছুরই আভাস দিয়েছি মৌসুমের শুরুতে ভুগতে থাকা বার্সেলোনা। কিন্তু ন্যু-ক্যাম্পে নীল-মেরুন জার্সিধারীদের বর্ণহীন পারফরম্যান্স হতাশাই বাড়াচ্ছে শুধু।
ম্যাচ হারলেও ম্যাচজুড়ে ছিল বার্সেলোনার আধিপত্য। গোটা ম্যাচে ৬৩ শতাংশ বল দখলে ছিল স্বাগতিকদের।
১২টি শটের ৩টি লক্ষ্যে রাখে তারা। অপরদিকে ৩৭ শতাংশ বল দখলে রেখে ৮টি শটের ২টি লক্ষ্যে রাখে বেতিস।
একাদশ মিনিটে প্রথম লক্ষ্যে শট নেয় বার্সেলোনা। জর্ডি আলবার ক্রসে ফিলিপে কুটিনহোর ফ্লিক ঠেকিয়ে দেন বেতিস গোলরক্ষক রুই সিলভা।

৩৩তম মিনিটে ধাক্কা খায় বার্সেলোনা। চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন দলটির তরুণ মিডফিল্ডার গাভি। প্রতিপক্ষের জোরালো শটে মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠে কিছুক্ষণ পড়ে থাকেন তিনি। প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়েন গাভি।
৪৫তম মিনিটে গোলের সহজ সুযোগ নষ্ট করে বেতিস। সতীর্থের ক্রস ডি-বক্সে দারুণ পজিশনে পেয়েও শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি আইতর রুইবাল।
বিরতি থেকে ফিরে অবশ্য বার্সেলোনার জাল ভেদ করেছিলেন রুইবাল, তবে অফসাইডের খড়গে সাফল্য মেলেনি স্প্যানিশ স্ট্রাইকারের।

৫৮তম মিনিটে কুটিনহোর জায়গায় উসমান দেম্বেলে এবং নিকো গঞ্জালেসকে উঠিয়ে ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ংকে নামান কোচ জাভি। জোড়া পরিবর্তনের প্রভাব কিছুটা পড়েও, আক্রমণে ধার বাড়ে বার্সেলোনার। কয়েকটি হাফ চান্সও তৈরি করে তারা, যদিও নিশ্চিত সুযোগ মিলছিল না। ৭৭তম মিনিটে লক্ষ্যভ্রষ্ট শটে হতাশ করেন দেম্বেলে। উল্টো কাউন্টার অ্যাটাকে এগিয়ে যায় রিয়াল বেতিস। ৭৯তম মিনিটে সতীর্থের পাস পেয়ে ক্রিস্টিয়ান তেইয়ো বল বাড়ান ডি-বক্সে ফাঁকায় থাকা হুয়ানমিকে। আর সহজেই লক্ষ্যভেদ করেন এই স্প্যানিয়ার্ড।

এই জয়ে পয়েন্ট তালিকায় তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে রিয়াল বেতিস। ১৬ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৩০। এক ম্যাচ কম খেলা বার্সেলোনার লা লিগায় এটি চতুর্থ হার। ছয় জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ২৩ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে রয়েছে ব্লাউগ্রানারা।
১৬ ম্যাচে ১২ জয় ও ৩ ড্রয়ে ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রিয়াল মাদ্রিদ। দুইয়ে থাকা সেভিয়ার পয়েন্ট ৩১।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর