× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার , ১১ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

প্রকল্প বাস্তবায়নে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ডিজিটাল কার্যক্রম জোরদার করার আহ্বান

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(১ মাস আগে) ডিসেম্বর ৫, ২০২১, রবিবার, ৬:৫৯ অপরাহ্ন

আন্তর্জাতিক মানবিক উন্নয়ন সংস্থা গুড নেইবারস বাংলাদেশ (জিএনবি) আয়োজিত মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য সরকার সরকারী বেসরকারী প্রকল্প বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে সরকারের ডিজিটাল কার্যক্রম বড়ধরণের ভূমিকা রাখছে। ডিজিটাল কার্যক্রম জোরদার করতে সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। আজ রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জেল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে সংগঠনের ২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গুড নেইবারস বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর এম মাঈনউদ্দিন মইনুল। সভায় বক্তৃতা করেন কেএজেড সফটওয়ার লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক হাফিজুল ইসলাম, জিএনবি’র প্রজেক্ট ডেভেলপমেন্ট ইউনিট প্রধান আনন্দ কুমার দাস, সাংবাদিক সাকিলা পারভীন প্রমূখ।
অনুষ্ঠানে সরকার, দাতা সংস্থা ও সুবিধাভোগীদের কাছে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমইএস) চালু করতে কেএজেড সফটওয়ার লিমিটেডের সঙ্গে সমঝোতা স্বারক (এমওইউ) স্বাক্ষরিত হয়। এমইএস চালুর ফলে সংস্থার কার্যক্রম মনিটারিং, রিপোর্টিং ও মূল্যায়নের ক্ষেত্রে বড়ধরণের পরিবর্তন আসবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়।
অনুষ্ঠানে জিএনবি’র কান্ট্রি ডিরেক্টর এম মাঈনউদ্দিন মইনুল বলেন, গুড নেইবারস ক্ষুধা ও বৈষম্যমুক্ত বিশ্ব গঠনের লক্ষ্যে ১৯৯৬ সালে থেকে বাংলাদেশে সমাজ কল্যাণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছে। সংস্থাটি ২০ হাজার শিশু ও ১৮ হাজার পরিবার এবং তৃণমূল পর্যায়ের নারী ও যুবকদের উন্নয়নে কাজ করছে। বর্তমানে জিএনবি’র ১২টি জেলায় ১৬টি কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট এবং ৪টি বিশেষ প্রকল্প রয়েছে।
জলবায়ু পরিবর্তন ও দূর্যোগ মোকাবেলায় কার্যক্রমের পাশাপাশি বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির সেবায় কাজ করছে। এখন থেকে এই সকল কার্যক্রম ডিজিটাল সিস্টেমে পরিচালিত হবে বলে তিনি জানান। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, সকলের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও উন্নত অর্থনীতির গড়ে তোলার লক্ষ্যে তথ্য-প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারের প্রতি সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে। একইসঙ্গে অনলাইন কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য এই কার্যক্রম সফল করতে সম্মিলিত প্রচেষ্টা চালানেরা আহ্বান জানান তারা।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর