× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার , ৭ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

স্বাধীনতা কাপ ছেড়ে খ্যাপ খেললেন বারিধারার মিশরীয় ফুটবলার মোস্তফা

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার
৬ ডিসেম্বর ২০২১, সোমবার

স্বাধীনতা কাপের ম্যাচে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল উত্তর বারিধারা। ম্যাচ জিতলে সুযোগ ছিল শেষ আটে যাওয়ার কিন্তু ড্র করে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিয়েছে উত্তর বারিধারা। তবে গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে ছিলেন না দলের মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোস্তফা মাহমুদ। ক্লাব সূত্রে জানা গেছে, সিলেটে খেপ খেলতে গিয়েছেন এই ফুটবলার। রোববার কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে স্বাধীনতা কাপে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে উত্তর বারিধারার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বাংলাদেশ বিমানবাহিনী। সার্ভিসেস দলটির বিদায় আগেই নিশ্চিত হলেও এ ম্যাচে ড্র করে বিদায় নিয়েছে উত্তর বারিধারা। গত মৌসুমের পর নতুন মৌসুমেও তালিকার নিচের দিকের দল উত্তর বারিধারার মূল ভরসা ছিল মিশরের ফরোয়ার্ড মোস্তফা মাহমুদ। তাকে কেন্দ্র করেই ম্যাচের পরিকল্পনা সাজায় ক্লাবটি।
কিন্তু গতকাল সেই মোস্তফা মাহমুদকেই নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পায়নি বারিধারা। ক্লাব সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের বিয়ানিবাজারে খেপ খেলতে গিয়েছেন মোস্তফা। তার মা অসুস্থ থাকায় টাকার প্রয়োজন ছিল, ক্লাবের কাছে টাকা চাইলেও ক্লাব থেকে কোনো টাকা দেয়নি। মোস্তফার খেপ খেলার বিষয়টি ক্লাব কর্তৃপক্ষ স্বীকার করার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও দেখা গিয়েছে এ নিয়ে আলোচনা। বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর বিপক্ষে ম্যাচ শেষে দলটির সহকারী ম্যানেজার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, মোস্তফা বিয়ানীবাজারে খেপ খেলতে গিয়েছেন। সে ছবি আমরা পেয়েছি।’ জানা গেছে গত মৌসুমেও মোস্তফা মাহমুদ প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচের গ্যাপে গ্যাপে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে খেপ খেলেছেন। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ রেখে খেপ খেলতে যাওয়ার জন্য মোস্তফার বিপক্ষে ক্লাব কর্তৃপক্ষ কী পদক্ষেপ নেয় সেটাই দেখার বিষয়।
গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন শেখ রাসেল
দুই জয়ে সবার আগে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে শেখ রাসেল। গতকাল শেখ জামালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই শেষ আট নিশ্চিত করলো তারা। এক জয়, দুই ড্রয়ে ৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের রানার্সআপ শেখ জামাল। দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘ডি’ গ্রুপের সেরা আগেই হয়েছিল কিংস। কোয়ার্টার ফাইনালে কিংস খেলবে ২০১৩ সালের রানার্সআপ শেখ জামালের সঙ্গে। শেখ রাসেলের প্রতিপক্ষ চট্টগ্রাম আবাহনী, বাংলাদেশ পুলিশ ও বাংলাদেশ নৌবাহিনীর যে কেউ। গতকাল কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে ২৬তম মিনিটে এগিয়ে যায় শেখ জামাল। মাঝমাঠ থেকে রাহবার ওয়াহেদ খানের পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আক্রমণে ওঠেন শাহিন মিয়া। প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডাররা কেউ চার্জ না করায় এগিয়ে যাওয়ার অনেকটা পথ পেয়ে যান তিনি। বক্সের উপর থেকে বাঁ পায়ের দারুণ বাঁকানো শটে আশরাফুল ইসলাম রানাকে পরাস্ত করেন শেখ জামালের এই ডিফেন্ডার। দুই মিনিট পরই সমতায় ফেরে ২০১২-১৩ মৌসুমে ঘরোয়া ট্রেবল জেতা শেখ রাসেল। মাঝমাঠ থেকে আক্রমণে ওঠা ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড এইলতন মাচাদো দে সৌজা রোজার থ্রু পাস ছুটে এসে স্লাইড করেও আটকাতে পারেননি গোলরক্ষক মোহাম্মদ নাঈম। নিখুঁত কোনাকুনি শটে ফাঁকা পোস্টে বল জড়িয়ে দেন পর্তুগিজ ইসমায়েল রুতি তাবারেজ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর