× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ১৭ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার , ৩ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

সারা দেশে অনশনের ঘোষণা বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে সরকারকে চারদিনের সময় দিয়ে আগামী রোববার সারা দেশে অনশনের ডাক দিয়েছে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতারা। গতকাল বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার দাবিতে আয়োজিত সমাবেশ থেকে এই ঘোষণা দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্য সচিব এডভোকেট ফজলুর রহমান।
তিনি বলেন, অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার সুযোগ দিতে হবে। এজন্য আমরা সরকারকে চারদিন সময় দিলাম। আগামী রোববারের মধ্যে যদি দাবি মেনে নেয়া না হয় তাহলে সারা দেশের আইনজীবীরা অনশন করবেন।
সিনিয়র আইনজীবী সাবেক আইন ও বিচার প্রতিমন্ত্রী ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর বীর উত্তম বলেন, মনে রাখবেন পৃথিবী চালায় আইনজীবীরা। সুতরাং অবিলম্বে দেশনেত্রীকে মুক্তি দিয়ে বিদেশে যাওয়ার সুযোগ দিন। অন্যথায় আইনজীবীরা রাস্তায় নামলে সরকারের পতন হতে বেশি সময় লাগবে না।
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, বেগম খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে সংগ্রাম করছেন। তিনি এতটাই অসুস্থ আজকে সেটা বর্ণনা করা যাবে না। তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।
তার আশু উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসকরা পরিষ্কার করে বলেছেন, তারা যেটা করার সেটা করেছেন। কিন্তু তাদের কাছে সেই প্রযুক্তি নেই যে প্রযুক্তির মাধ্যমে বেগম জিয়াকে আরও উন্নত চিকিৎসা করতে পারবেন।
সরকারের উদ্দেশ্যে ফখরুল বলেন, আপনারা আইন দেখাচ্ছেন। কোন আইন? ৪০১ ধারায় পরিষ্কার বলা আছে, সরকার চাইলেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠাতে পারে। মূলত আইন কোনো বাধা নয়। বাধা হচ্ছে সরকার। যারা মানুষকে ভুল বুঝিয়ে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। তিনি বলেন, আজকে সংবিধানকে কাটাছেঁড়া করে, ছিন্নভিন্ন করে এমন অবস্থা করা হয়েছে যেখানে আজকে কেউ কথা বলতে পারে না, দেশে কোনো গণতান্ত্রিক অধিকার নেই, বাক-স্বাধীনতা নেই, আইনের শাসন নেই। সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হচ্ছে আজকে বিচার ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ দলীয়করণ করা হয়েছে।
আইনজীবীদের ধন্যবাদ জানিয়ে ফখরুল বলেন, আজকে আইনজীবী সমাবেশের মধ্য দিয়ে আমাদের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে। আমরা যারা দীর্ঘকাল পথে পথে ঘুরছি সারা দেশ থেকে আইনজীবীরা এসে, আমাদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে আমাদেরকে উজ্জীবিত করেছেন। আগামীতে সারা দেশের গণতান্ত্রিকামী মানুষকে সঙ্গে নিয়ে দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো এবং তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠাতে সক্ষম হবো।
বিএনপি চেয়ারপারসন উপদেষ্টা এডভোকেট ফজলুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- মীর নাসির উদ্দিন, এডভোকেট জয়নাল আবেদীন, নিতাই রায় চৌধুরী, আহমেদ আযম খান, বিএনপি’র যুগ্ম-মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট মাসুদ আহম্মেদ তালুকদার, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, এডভোকেট শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল প্রমুখ।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রাকিব
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার, ৮:০৮

আইনজীবীদের শক্ত-হাত, বজ্র-কণ্ঠ অবশ্যই পারবে খালেদা জিয়াকে হায়নার হাত থেকে মুক্ত করতে।

অন্যান্য খবর