× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, শনিবার , ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

রেকর্ড গড়া জয়ে গ্রুপসেরা লিভারপুল

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক
৮ ডিসেম্বর ২০২১, বুধবার

লিড নিয়েও পার পেলো না এসি মিলান। দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তনে চ্যাম্পিয়নস লীগে লিভারপুল অব্যাহত রাখলো জয়ের ধারা। মঙ্গলবার রাতে সান সিরোতে স্বাগতিকদের ২-১ গোলে হারিয়ে অলরেডরা পায় টানা ষষ্ঠ জয়। ইতিহাসে সপ্তম ক্লাব হিসেবে ইউসিএলের গ্রুপপর্বের ছয় ম্যাচই জেতার রেকর্ড গড়েছে লিভারপুল। একই সঙ্গে গ্রুপসেরা হয়ে প্রথম ধাপ শেষ করেছে তারা।

ফিকায়ো তোমোরির গোলে এসি মিলান লিড নেয়ার পর ম্যাচে সমতা ফেরান মোহাম্মদ সালাহ। এরপর জয়সূচক গোলটি আসে ডিভোক ওরিগির পা থেকে।
পরের রাউন্ডে পৌঁছাতে ঘরের মাঠে জিততেই হতো এসি মিলানকে। সঙ্গে পক্ষে থাকতে হতো পোর্তো বনাম আটলেটিকো মাদ্রিদের ম্যাচের ফলাফলও। দুটোর কোনোটাই হয়নি।

ঘরের মাঠে বল দখলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখাতে পারলেও আক্রমণে লিভারপুলের চেয়ে বেশ পিছিয়ে ছিল এসি মিলান।
৪৮ শতাংশ বল দখলে রেখে ৮টি শটের ৩টি লক্ষ্যে রাখে স্বাগতিকরা। অপরদিকে ৫২ শতাংশ বল দখলে রেখে মোট ২২টি শট নেয় লিভারপুল, যার লক্ষ্যে ছিল ৭টি।

২৮তম মিনিটে ফিকায়ো তোমোরির গোলে এগিয়ে যায় মিলান। প্রতিপক্ষের কর্নারে কাছের পোস্টে ক্লিয়ার করার চেষ্টা বল মিস করেন তাকুমি মিনামিনো। গোলরক্ষক আলিসন বুঝে উঠতে পারেননি, তার হাত ছুঁযে বল যায় তোমোরির কাছে। জালে পাঠে ভুল করেননি এই ইংলিশ ডিফেন্ডার।
ওদিকে অ্যাটলেটিকো-পোর্তো ম্যাচে তখন স্কোরলাইন গোলশূন্য। মিলান উঠে যায় তালিকার দুই নম্বরে, পরের ধাপে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকে ভালোভাবেই।

স্বস্তিতে পানি ঢেলে দেন মোহাম্মদ সালাহ। ৩৬তম মিনিটে মিশরীয় ফরোয়ার্ডের গোলে সমতায় ফেরে লিভারপুল।
তোমোরির ভুলে ৫৫তম মিনিটে পিছিয়ে পড়ে এসি মিলান। সতীর্থের পাসে তোমোরি বলের নিয়ন্ত্রণ নিতে ব্যর্থ হলে পেয়ে যান সাদিও মানে। তার শট গোলরক্ষক ফেরানোর পর হেডে বল জালে পাঠান দিভোক ওরিগি।
ওদিকে পোর্তোর বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয় পায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। গোল করেন অঁতোয়ান গ্রিজম্যান, অ্যাঞ্জেল কোররেয়া, রদ্রিগো ডি পল। পোর্তোর ব্যবধান কমানো গোলটি করেন সার্জিও অলিভেইরা।

৬ ম্যাচে শতভাগ সাফল্যে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে লিভারপুল। ৭ পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ আতলেতিকো। ৫ পয়েন্ট নিতে তিনে থাকা পোর্তো আগামী মৌসুমে খেলবে ইউরোপা লিগে। এসি মিলান শেষ করল ৪ পয়েন্ট নিয়ে।
ওদিকে বেসিকতাসকে ৫-০ গোলে হারিয়েও বিদায় নিয়েছে ডর্টমুন্ড। স্পোর্তিং লিসবনের সঙ্গে পয়েন্ট সমান থাকলেও গোল ব্যবধানে ইউরোপা লিগে চলে গিয়েছে তারা। দুটি করে গোল করেছেন আর্লিং হালান্দ আর মার্কো রেউস, অপর গোলটি দনিয়েল মালেনের।

স্পোর্তিং লিসবনকে ৪-২ গোলে হারিয়ে গ্রুপের শীর্ষ দল হয়ে পরের রাউন্ডে উঠেছে আয়াক্স। গোল করেছেন সেবাস্তিয়েন অলার, আন্তোনি সিলভা, স্টীভেন বের্গুইস ও ডেভিড নেরেস। স্পোর্তিংয়ের হয়ে দুই গোল করেছেন ব্রুনো তাবাতা ও নুনো সান্তোস।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর