× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, রবিবার , ৯ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩ হিঃ

দ্রুত রায় কার্যকরের দাবি আবরারের পরিবারের

দেশ বিদেশ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি
৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বী হত্যা মামলায় আদালতের দেয়া রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন আবরারের মা রোকেয়া খাতুন এবং ছোট ভাই আবরার ফায়াজ। গতকাল দুপুরে রায় শোনার পরে কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই সড়কের বাসায় আবরারের মা রোকেয়া খাতুন রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। জানান, “আদালত যে রায় দিয়েছেন আমরা সন্তোষ প্রকাশ করছি। সেই সঙ্গে এ রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি করছি। আমরা চেয়েছিলাম প্রত্যেক আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি হোক ফাঁসি। ২০ জনকে আদালত ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন এবং ৫ জনকে দিয়েছেন যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। এতে আইনের প্রতি আমি শ্রদ্ধাশীল। সেই সঙ্গে অমিত সাহার ফাঁসি চাই।” তিনি আরও বলেন,  ‘যেদিন এ রায় কার্যকর হবে সেদিন ভাববো আমরা বিচার পেয়েছি।’ আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আবরার ফায়াজ বালেন, ‘এ রায়ে আমরা সন্তোষ প্রকাশ করছি।
সেই সঙ্গে এখনো আমরা রায় পুরোটা দেখিনি। সেটা পর্যালোচনা করে পরে জানাতে পারবো যে, এ রায় নিয়ে পরবর্তীতে কী পদক্ষেপ নিবো।’
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৬ই অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের একটি কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের  নেতাকর্মীরা আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে ৭ই অক্টোবর চকবাজার থানায় হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা। ২০১৯ সালের ১৩ই নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. ওয়াহিদুজ্জামান ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। বুধবার দুপুরে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান এই হত্যা মামলায় ২০ জনকে ফাঁসি এবং ৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়ে রায় ঘোষণা করেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর