× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

এখনই বন্ধ হচ্ছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

শিক্ষাঙ্গন

স্টাফ রিপোর্টার
(৪ মাস আগে) জানুয়ারি ১০, ২০২২, সোমবার, ১২:২১ অপরাহ্ন

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখনই বন্ধ হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। রোববার রাতে ওমিক্রন পরিস্থিতি নিয়ে জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে আপাতত স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে শিক্ষার্থীদের সশরীরে ক্লাসে পাঠদানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। এছাড়া এ বৈঠকের বিষয়ে আজ সোমবার বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলনে আসেন শিক্ষামন্ত্রী।

ডা. দীপু মনি বলেন, যখন আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিলাম শিক্ষার্থীদের কম সংক্রমণ ছিল। এখন অনেক শিক্ষার্থী টিকার আওতায় এসেছে। টিকা প্রদান জোরদার করা হবে। আমরা ধাপে ধাপে ৩১শে জানুয়ারির মধ্যে টিকাদান শেষ করবো। এখন থেকে শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন নিয়ে ভাবতে হবে না।
পরিচয়পত্র দেখালেই টিকা পাবেন।

এবছরের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা নেবে কে? পরীক্ষা নেবে শিক্ষাবোর্ড। আপনারা গুজবে কান দেবেন না। ২০২২ সালে আমরা পরীক্ষা নিতে চাই। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা সময়মতো নিতে পারব না। কারণ তারা সেভাবে ক্লাস করতে পারেনি। আমরা একটা আভাস দিয়েছি বছরের মাঝামাঝি সময়ে নেব। এখনো চিন্তা তাই। পরীক্ষা হবে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে। তবে সুনির্দিষ্ট তারিখ দেয়া এই মুহূর্তে সম্ভব নয়। আশা করি ২/৩ মাস আগে বলতে পারব কখন পরীক্ষা হবে। পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে বছরের মাঝামাঝি সময়ে নেবার ইচ্ছা আছে।
বুটেক্স'র আন্দোলন নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুটেক্স) শিক্ষার্থী ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধের দাবিতে আন্দোলন করছেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যখন সভা করছিল তখন শিক্ষার্থীরা বাইরে থেকে গেট আটকে দেয়। এরই প্রতিবাদে শিক্ষকরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট পালন করছেন। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গতকাল কথা হয়েছে। তারা তাদের অবরোধ তুলে নিয়েছেন। খুব শিগগিরই অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক সবাই ভ্যাকসিনেটেড সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করার কোন যৌক্তিক কারণ নেই। শিক্ষার্থীদের চাওয়াতো যৌক্তিক হতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুকসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর