× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

কৃষিমন্ত্রীর সাথে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ /‘শাস্তি নয়, সতর্ক করতে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা’

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(৪ মাস আগে) জানুয়ারি ১৬, ২০২২, রবিবার, ৩:১৩ অপরাহ্ন

কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর. মিলার। রোববার সচিবালয়ে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় দু’দেশের কৃষি, অর্থনীতি, বৈশ্বিক ও আঞ্চলিক নানা ইস্যু এবং সাম্প্রতিক মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনা হয়। মার্কিন দূতাবাসের এগ্রিকালচারাল অ্যাটাচে মেগান ফ্রান্সিস বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় তিনি বলেন, অনেকক্ষণ ধরে কথা বলেছি। তারা বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র সরকার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের উপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি বাংলাদেশকে শাস্তি দেয়ার জন্য নয়, সতর্ক করার জন্য করা হয়েছে। সম্প্রতি তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের বিষয়ে যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, তারা উত্তর কোরিয়া ও মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশকে একইভাবে বিবেচনা করা- আমি বলেছি বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। যুক্তরাষ্ট্র সরকার মানবাধিকারের বিষয়টিকে খুবই গুরুত্ব দিয়েছে।
বাংলাদেশ সফলভাবে জঙ্গি দমন করতে পেরেছে বলে তারা প্রশংসা করেছেন। তাদের ধারণা কিছু কিছু ক্ষেত্রে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছে। সেটার উন্নতি হওয়া দরকার। তারা আশা করে এটা হবে।

মন্ত্রী বলেন, আমি তাদের বলেছি, আমাদের দেশে মানবাধিকার পরিস্থিত ভালো। মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেনি। বাংলাদেশ কঠোরভাবে জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করেছে। কিছু জায়গায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী হয়তো ভুল করেছে, সেজন্য ১৯০ জন র‌্যাব কর্মকর্তার শাস্তি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রদূত যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সাথে কথা বলবেন। যাতে দ্রুত এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জ নির্বাচন চলছে- এ বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হচ্ছে। আশা করি শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে। সারা দেশই তাকিয়ে আছে। আমাদের সরকারের বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ানোর জন্য আমরা মনে করি নির্বাচনটা সুন্দর ও সুষ্ঠু হওয়া উচিত। কোনো অবস্থাতেই এই নির্বাচনে যাতে কোনো ত্রুটি না থাকে, সমালোচনার সুযোগ না থাকে, সেটিই আমরা আশা করছি। তিনি বলেন, নির্বাচনে যে ফল আসবে সেটা যদি আমাদের বিরুদ্ধেও যায়, তা আমরা গ্রহণ করবো। একটা সিটি নির্বাচনে হেরে গেলে কিছু যায়-আসে না। কিন্তু জনগণের বিজয় হবে।

সাক্ষাৎকালে দেশের কৃষি উৎপাদনের অভাবনীয় সাফল্যের কথা তুলে ধরে কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও ইউএসএর মধ্যে কৃষিখাতে সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। ইউএসএ বাংলাদেশের কৃষি গবেষণা সিস্টেম (এনএআরএস) উন্নয়নে বেশ সহযোগিতা করেছে। বাংলাদেশ গত ৫০ বছরে কৃষি উৎপাদনে অসাধারণ সাফল্য অর্জন করেছে।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর. মিলার বলেন, বাংলাদেশ ও ইউএসএর মধ্যে কৃষিখাতে গভীর সম্পর্ক বিদ্যমান। দু'দেশের মধ্যে কৃষি বাণিজ্য অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশ এখন ইউএসএর কৃষি পণ্যের ২৬তম বাজার। সামনের দিনগুলোতে কৃষিখাতে সম্পর্ক ও সহযোগিতা আরও বৃদ্ধি পাবে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
জামশেদ পাটোয়ারী
১৬ জানুয়ারি ২০২২, রবিবার, ৮:৩০

এরা বিদেশীদের সাথে কথা বলার সময় এমন ভাব দেখায় যেন বিদেশিরা কিছুই জানেনা। দেশে খুন আর গুম এমন পর্যায়ে পৌছেছিল ভুক্তভোগীসহ দেশের মানুষ ভাবছিল এদের থামানো দরকার, ভুক্তভোগীদের আর্তনাদে আকাশ বাতা ভারী হচ্ছিল। গুম হওয়া মানুষগুলোর পরিবারের ছোট ছোট সদস্যদের আর্তনাদ যেন কারো কর্ণ কুহরে প্রবেশ করছিলনা। নিষেদাজ্ঞা দেয়ার পরও গুম হওয়া পরিবারগুলৌকে পুলিশী হয়রানী চলছে। এব্যাপারে আসক (আইন ও সালিশ কেন্দ্র) বক্তব্য প্রনিধান যোগ্য। ক্ষমতাসীনরা মনে করে একমাত্র তাদের বক্তব্যই গ্রহণযোগ্য। কিন্তু বিদেশীরা তো আসকের বক্তব্যকেই গ্রহণ করবে। ক্ষমতাসীনদের প্রতিটি সদস্য নিজেদের এমনভাবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন যে কেউ তাদের বিশ্বাস করবেনা। কারণ মিথ্যুকদের কেউ বিশ্বাস করেনা। যদিও তাদের ভাব খানা এমন যে "কিছুই হয়নি" নিষেদাজ্ঞার পর কিন্তু গুম ও খুন দুটিই বন্ধ হয়েছে। তাহলে ধরেই নেয়া যায় নিষেদাজ্ঞায় কাজ হচ্ছে।

অন্যান্য খবর