× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২০ মে ২০২২, শুক্রবার , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ডিসি সম্মেলন শুরু আজ /করোনা আক্রান্ত পাঁচ ডিসি, দুই বিভাগীয় কমিশনার

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
১৮ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার

জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন শুরু হচ্ছে আজ মঙ্গলবার। তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলন চলবে ২০শে জানুয়ারি পর্যন্ত। তবে সম্মেলন শুরুর আগেই দুই বিভাগীয় কমিশনার ও পাঁচ ডিসি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে স্বাভাবিকভাবে তারা সম্মেলনে 
যোগ দিতে পারছেন না। সোমবার সচিবালয়ে ডিসি সম্মেলন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, করোনা সংক্রমণের কারণে এবার এ সম্মেলনের মূল অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে। তবে প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার ও প্রধান বিচারপতি ভার্চ্যুয়ালি সম্মেলনে যুক্ত হবেন। ডিসিরা সম্মেলনে অংশ নেবেন ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, রাজশাহী ও বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার এবং কক্সবাজার, রাজশাহী, পটুয়াখালী, লক্ষ্মীপুর ও চুয়াডাঙ্গার ডিসি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। জেলা প্রশাসকদের ইতিমধ্যে বলে দেয়া হয়েছে যে, ডিসি, তার চালক, গানম্যান ও তার সঙ্গে যারা আসবেন। সবার আরটি-পিসিআর টেস্ট করে আসতে হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ২৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ডিসি সম্মেলনে এর প্রভাব পড়বে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, যাদের পরীক্ষায় নেগেটিভ এসেছে, তারাই দায়িত্ব পালন করবেন। সংক্রমণের যে পরিস্থিতি এখন চলছে, তাতে ডিসি সম্মেলন ভার্চ্যুয়ালি করা যেত কিনা- এ প্রশ্নের উত্তরে সচিব বলেন, পাঁচ দিনের জায়গায় তিন দিন করে দেয়া হয়েছে। যেসব জেলার ডিসিরা আক্রান্ত হয়েছেন, সেসব জেলার এডিসিরা আসবেন। ওসমানী মিলনায়তনে ৭০০ লোক বসতে পারেন, সেখানে ৬৪ জনকে বসানো হচ্ছে। ডিসিরা করোনা পরীক্ষা করে আসছেন, প্রয়োজনে আরেক দিন পরীক্ষা করা হবে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এবারের ডিসি সম্মেলনে প্রথমে করোনা ব্যবস্থাপনার বিষয়টি আলোচনায় আসবে। এ ছাড়া আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি, ভূমি ব্যবস্থাপনা, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম জোরদার করা, ত্রাণ ও পুনর্বাসন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, স্থানীয় পর্যায়ে কর্মসৃজন ও দারিদ্র্যবিমোচন কর্মসূচি বাস্তবায়ন, শিক্ষার মানোন্নয়ন ও সমপ্রসারণ, স্বাস্থ্যসেবা ও পরিবারকল্যাণ ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা হবে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মেলন উদ্বোধন করবেন। একই দিন সন্ধ্যায় প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ডিসিদের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেবেন। আর ১৯শে জানুয়ারি শুভেচ্ছা বক্তব্য দেবেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।
ডিসি সম্মেলনে মন্ত্রী-সচিবদের উপস্থিতিতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ সম্পর্কে ডিসিদের দেয়া প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত হয়। ডিসিরা মাঠপর্যায়ে সরকারের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। এ জন্য এ সম্মেলন ও তাদের প্রস্তাবকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখা হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, এবার ডিসি সম্মেলনে ৩ দিনে মোট ২৫টি অধিবেশন হবে। এর মধ্যে কার্য অধিবেশন হবে ২১টি।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর