× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ঈশ্বরগঞ্জ আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত অর্ধশত

বাংলারজমিন

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার রাতে উচাখিলা ইউনিয়নে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
জানা যায়, আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। এ নির্বাচনকে সামনে রেখে এলাকায় প্রচারণায় ব্যাস্ত আওয়ামী লীগ, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, জাতীয় পার্টি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এরই ধারাবাহিকতায় প্রতিটি মুহূর্তেই মুখোমুখি হয়ে পড়ছে বিভিন্ন প্রার্থীর সমর্থকদের মিছিল। ফলে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নেই চলছে উত্তেজনা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মতো ঘটনা। গত মঙ্গলবার রাতে উচাখিলা ইউনিয়নে নৌকা এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৪০ জন এবং সোমবার সরিষা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

উচাখিলা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে মরিচারচর এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করছিলেন। এ সময় নৌকা সমর্থিত কিছু কর্মী মোটরসাইকেল নিয়ে শোডাউন দিতে দিতে তার সভাস্থলে এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে এবং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাড়িঘরে হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। তিনি আরও জানান, সংঘর্ষে রাজিব, সাদেক, হামিদুলসহ তার বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন।
আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে দলীয় নেতাকর্মীরা নৌকার মিছিল নিয়ে ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। একপর্যায়ে মরিচারচর এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলামের বাড়ির সামনে যেতেই কিছু লোক মিছিলে বাধা দেয়। এতে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। তিনি আরও জানান, নজরুল ইসলামের সন্ত্রাসীরা নৌকার মিছিলের উপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে এবং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে উচাখিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মঞ্জুরুল হক, রনি, রাজিব, বখতিয়ার, রাকিব, মগবুল, মাহফুল, হাবিল, আব্দুল্লাহসহ ২৫/৩০ জন নেতাকর্মীকে আহত করে। এদের মধ্যে রাজিবকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অপরদিকে সোমবার সরিষা ইউনিয়নের বাদাটি বাজারে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ এবং বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে এক যুবক। তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহজাহান ভূঁইয়া জানান, ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে বর্ধিত সভা শেষে বাড়ি ফেরার পথে বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা এমদাদুল হক ভূঁইয়াকে ছুরিকাঘাত করে এবং ২টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। পরে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিদ্রোহী প্রার্থী একরাম হোসেন ভূঁইয়া জানান, বর্ধিত সভায় উষ্কানিমূলক বক্তব্যের পর নৌকা সমর্থিত লোকজন বাদাটি বাজারে এসে মাসুদের দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ সময় এলাকার লোকজন তাদের ধাওয়া দেয়। ঈশ্বরগঞ্জ থানার অফিসার ইসচার্জ (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে তবে পৃথক দুটি ঘটনায় দুটি এলাকাতেই অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষই অভিযোগ দায়ের করেনি।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর