× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

চিলমারীতে আওয়ামী লীগে বিদ্রোহীর ছড়াছড়ি

বাংলারজমিন

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
২০ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার

চিলমারীতে ৬ষ্ঠ ধাপে নির্বাচনে শুরু হয়েছে ভোটের আমেজ। নির্বাচনে সরাসরি বিএনপি ভোট লড়াইয়ে না আসলেও অনেকে রয়েছেন স্বতন্ত্র হিসেবে। তবে আওয়ামী লীগে বিদ্রোহীর ছড়াছড়ি দেখা দিয়েছে চিলমারীতে। যদিও জাতীয় পার্টির কোনো প্রার্থী ভোটে অংশ নেননি। আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী থাকলেও দীর্ঘদিনের দাবি ও ক্ষোভের কারণে একাধিক বিদ্রোহ প্রার্থী অংশ নিয়েছেন ইউনিয়ন নির্বাচনে। একাধিক বিদ্রোহী মাঠে থাকায় ভোট যুদ্ধ জমে উঠেছে বলে মন্তব্য করেন এলাকাবাসী। তবে আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থীকে চাপে রাখতে এটি কৌশল হতে পারে বলে মন্তব্য করেন সচেতন মহল। এদিকে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করার লক্ষ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধারাসহ জেলা ও উপজেলার নেতাকর্মীরাও নেমেছেন মাঠে।
থানাহাট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুর রাজ্জাক মিলন (নৌকা), এই ইউনিয়নে বিদ্রোহ হিসেবে রয়েছেন উপজেলার সাবেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল কবির (চশমা), ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মো. আমিনুল ইসলাম (ঘোড়া), কৃষক লীগের নেতা সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. হালিমুজ্জামান বাবলু (আনারস)। এ ছাড়াও ভোটযুদ্ধে রয়েছেন মো. হুমায়ুন কবির (মোটরসাইকেল), মো. মহিউদ্দিন আহমেদ (টেলিফোন), কৃষক ও জনতা লীগের জাহেদুল ইসলাম (গামছা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী জোবাইদুল ইসলাম (হাতপাখা)। রমনা মডেল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মো. আজগার আলী সরকার (নৌকা) নিয়ে মাঠে থাকলেও বিদ্রোহী হিসেবে ভোট লড়াইয়ে রয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সদস্য মো. হাবিবুর রহমান (আনারস), মো. গোলাম আশেক আকা (মোটরসাইকেল), মো. ওবাইদুল হক হিরু (টেলিফোন), সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মো. নুর-ই-ইলাহী তুহিন (ঘোড়া)। এ ছাড়াও চেয়ারম্যান পদ দখল করতে মাঠে রয়েছেন মো. জোবাইদুল ইসলাম সুইট (অটোরিকশা), মো. নুর আলম (টেবিল ফ্যান), গাজী মো. শিবলী আকন্দ (চশমা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী মো. রাশেদুল ইসলাম রাসেদ (হাতপাখা)। অষ্টমীর চর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আবু তালেব ফকির (নৌকা), ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সদস্য সাবেক চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসেন (আনারস)। এ ছাড়াও নজরুল ইসলাম-১ (ঘোড়া) ও নজরুল ইসলাম-২ (চশমা) নিয়ে দৌড়ে রয়েছেন। চিলমারী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মো. গয়ছল হক মণ্ডল (নৌকা), বিদ্রোহী হিসেবে রয়েছেন কৃষক লীগের নেতা মো. আমিনুল ইসলাম (চশমা)। এ ছাড়াও বিএনপি নেতা মো. রিয়াজুল হক জোয়ার্দ্দার (আনারস) নিয়ে মাঠে থাকছেন। রাণীগঞ্জ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু (নৌকা) পেলেও বিদ্রোহী হিসেবে ভোটযুদ্ধে রয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সাঈদী হাসান মিঠু (টেলিফোন), মো. সাজেদুল ইসলাম দারোগা (আনারস)। এ ছাড়াও চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন বিএনপি নেতা মো. আব্দুল করিম (মোটরসাইকেল), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রার্থী এরশাদুল ইসলাম (হাতপাখা) এবং স্বতন্ত্র হিসেবে রয়েছেন শিমুল মণ্ডল (চশমা), মো. আতিকুর রহমান (অটোরিকশা) ও মোসাঃ জাহানারা বেগম (ঘোড়া)। বিদ্রোহীরা নৌকার বিজয় টেনে ধরতে এগিয়ে যাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেন এলাকাবাসী। নৌকা আওয়ামী লীগের প্রতীক, উন্নয়নের মার্কা জানিয়ে নৌকার প্রার্থীরা বলেন, কোনো ষড়যন্ত্র নৌকার বিজয় ঠেকাতে পারবে না। বিদ্রোহীদের ব্যাপারে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম লিচু।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর