× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৩ মে ২০২২, সোমবার , ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২১ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

রংপুরে নার্সারি ব্যবসায়ীকে অপহরণের মূল হোতাসহ গ্রেপ্তার ২

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে
২১ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার

রংপুরে অপহরণ ও মুক্তিপণ আদায়কারী চক্রের মূল হোতাসহ ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এরা হলো- ইছা মিয়া (২৩) ও আব্দুল লতিফ (৪৫)। গত বুধবার বেলা আড়াইটায় গাইবান্ধা জেলার ধাপেরহাট থেকে ইছা মিয়াকে এবং বুধবার দিবাগত রাত দেড়টায় ঢাকার সাভারের হেমায়েতপুর থেকে আব্দুল লতিফকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল সকালে রংপুর র‌্যাব-১৩ কার্যালয়ে অধিনায়ক রেজা আহমেদ ফেরদৌস জানান, খুলনার খালিশপুর গোয়ালখালীতে বিশুদ্ধ এগ্রো নার্সারীর মাধ্যমে চারা গাছ উৎপাদন ও বিক্রি করে আসছিল নার্সারী ব্যবসায়ী খন্দকার শাহাবুল ইসলাম (৫৭) ও মো. ফারুক হোসেন (৩২)। শাহাবুল ফেসবুকে একটি পেইজ খুলে ওই নার্সারী চারা বিক্রি করে আসছিলেন। সম্প্রতি অপহরণকারী চক্রের সদস্য গঙ্গাচড়া উপজেলার আলমবিদিতর ইউনিয়নের ফুলবাড়ী চওড়া গ্রামের ইছা মিয়া ও আব্দুল লতিফ ছদ্মনাম ব্যবহার করে চারা কেনার উদ্দেশ্যে ওই নার্সারীতে যায়। তারা চারাগুলো পছন্দ করে তাদের বাগান দেখতে শাহাবুল ও ফারুককে মাটি পরীক্ষার জন্য রংপুরে আসতে বলেন। গত ১৩ই জানুয়ারি রাত সাড়ে ১০টায় খুলনা থেকে বাসে করে রংপুর নগরীর মর্ডাণ মোড়ে আসেন তারা।
এরপর অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা তাদের মোটরসাইকেলে করে গঙ্গাচড়া ফুলবাড়ী চওড়া গ্রামের রুহুল আমিনের বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর শাহাবুল ও ফারুকের চোখ, হাত-পা বেঁধে মাদুরের উপরে একদিন আটকে রাখে এবং তাদের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা না দিলে হত্যার হুমকি দেয় তারা। বিষয়টি জানতে পেরে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল ১৩ই জানুয়ারি রাত ১০টায় ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফুলবাড়ী চওড়া গ্রামের বাচ্চু চন্দ্র (৫২), স্বপন রায় (২২) ও খাদিজা বেগম (৩৭)কে গ্রেপ্তারসহ অপহৃতদের অক্ষত উদ্ধার করে। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে ইছা, আব্দুল লতিফ পালিয়ে যায়। এ সময় র‌্যাব রুহুল আমিনের বাড়িতে তল্লাশি করে একটি দেশি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলি, ৩টি তরবারি, একটি মাইক্রোবাস ও দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে। এরপর র‌্যাব তথ্য প্রযুক্তির ও গোয়েন্দা নজরদারির মাধ্যমে অপহরণচক্রের মূল হোতা ইছা মিয়া ও তার সহযোগী আব্দুল লতিফকে গ্রেপ্তার করে।  
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর