× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২১ মে ২০২২, শনিবার , ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৯ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

ইউক্রেন নিয়ে মন্তব্য করে পদত্যাগ জার্মান নৌবাহিনী প্রধানের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৩, ২০২২, রবিবার, ১২:৩১ অপরাহ্ন

ইউক্রেন নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পদত্যাগ করেছেন জার্মান নৌবাহিনীর প্রধান কাই-অচিম শোনব্যাচ। তিনি বলেছেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন চালানোর কথা একদম বাজেকথা (ননসেন্স)। তিনি আরো বলেছেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন আরো যা চান তা হলো সম্মান। এ খবরে তোলপাড় হয় চারদিক। ফলে পদত্যাগ করেন তিনি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেনসহ বিভিন্ন দেশ ইউক্রেনে এরই মধ্যে অস্ত্র সরবরাহ দিয়েছে। কিন্তু অস্ত্র সরবরাহের জন্য ইউক্রেনের অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছে জার্মানি। ওদিকে ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর আকাঙ্খার কথা প্রত্যাখ্যান করেছে রাশিয়া।
কিন্তু ইউক্রেন সীমান্তে প্রায় এক লাখ সেনা মোতায়েন করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাদের অভিযোগ তিনি ইউক্রেনে আগ্রাসন চালানোর প্রস্তুতি নিয়েছেন। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়া উত্তেজনা তুঙ্গে।

এমন যুদ্ধংদেহী অবস্থা থেকে ফিরে আসতে পশ্চিমাদের কাছে বেশ কিছু দাবি উত্থাপন করেছেন পুতিন। বলেছেন, রাশিয়ার নিরাপত্তা নিয়ে তিনি উদ্বিগ্ন। তার দাবির মধ্যে অন্যতম হলো, সামরিক জোট ন্যাটোতে ইউক্রেনের যোগ দেয়া বন্ধ করতে হবে। পূর্বাঞ্চলমুখী ন্যাটো বাহিনীর বিস্তার বন্ধ করতে হবে। ন্যাটোকে ওই অঞ্চলে সামরিক মহড়া ও অস্ত্র পাঠানো বন্ধ করতে হবে। কারণ, এসব ইস্যুকে রাশিয়ার জন্য সরাসরি হুমকি হিসেবে দেখেন পুতিন।
কিন্তু ইউক্রেনে মস্কোপন্থি একটি সরকার প্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্র করছেন ভ্লাদিমির পুতিন- এ অভিযোগ করেছে বৃটেন। এরই মধ্যে শনিবার জার্মান নৌবাহিনী প্রধান শোনব্যাচ বলেছেন, তিনি পদত্যাগ করেছেন। আরও ক্ষতি হওয়ার অবিলম্ব প্রভাবে তার ভূমিকা থেকে পদত্যাগ করেছেন তিনি।

কারণ, শুক্রবার তিনি ভারতের একটি থিংক ট্যাংকের সঙ্গে আলোচনাকালে ইউক্রেন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন। তার এ বক্তব্যের ভিডিও পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। ওই ভিডিওতে তিনি বলেন, অন্যদের মতো পুতিনের সঙ্গে সমআচরণ করা উচিত পশ্চিমাদের। তাকে তার দাবির প্রতি প্রকৃতপক্ষে সম্মান দেখানোটাই সহজ। সম্ভবত তিনি সেই সম্মানের দাবিদার।

তিনি আরো যোগ করেন, ২০১৪ সালে ক্রাইমিয়াকে রাশিয়া দখল করে। এই ভূখণ্ড রাশিয়ার দখলে গেছে। তা আর কখনো ফিরে পাওয়া যাবে না। তার এমন বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে ইউক্রেনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তারা শোনব্যাচের এমন মন্তব্যকে ক্যাটেগরিক্যালি অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর