× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৯ মে ২০২২, রবিবার , ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

দিনাজপুরে সরিষার ক্ষেতে মধু আহরণ

বাংলারজমিন

শাহ্‌ আলম শাহী, দিনাজপুর থেকে
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার

ভোজ্য তেলের মোট চাহিদা মেটাতে উত্তরের শস্য ভাণ্ডার দিনাজপুরে সরিষা চাষ বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। প্রতিকূল আবহাওয়া সত্ত্বেও এ অঞ্চলে এবার বাম্পার ফলন হয়েছে সরিষার। মাটির সুরক্ষায় চাষ হচ্ছে এ সরিষার। সরিষা ক্ষেতে মৌ বাক্স বসিয়ে মধু আহরণে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৌখামারি উদ্যোক্তারা। মধু উৎপাদনে বাড়তি আয়ের পাশাপাশি ফলন বৃদ্ধির সহায়তা পাচ্ছেন কৃষক। মধু উৎপাদনে কর্মসংস্থান হয়েছে অনেকের।
দিনাজপুরের পথে-ঘাটে সরিষা ফুলের মৌ মৌ গন্ধ আর বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে হলুদ রঙের সমারোহ। বিস্তীর্ণ সরিষা ক্ষেতে শোভা পাচ্ছে সারি সারি মৌবাক্স।
মৌমাছির আনাগোনা, মধু আহরণ আর সরিষা ফুলের দৃষ্টিনন্দন দৃশ্যে যেন জুড়িয়ে যায় প্রাণ।
গত বছর আশানুরূপ ফলন ও ভালো দাম পাওয়ায় এবার ভোজ্য তেলের মোট চাহিদা মেটাতে জেলায় ব্যাপক হারে বেড়ে গেছে সরিষার চাষ। দিনাজপুর জেলায় এবার প্রায় ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হয়েছে। এ অঞ্চলে এবার সরিষার বাম্পার ফলন হয়েছে।
সরিষা ক্ষেত উদ্যোক্তাতারা মৌবাক্স বসিয়ে মধু আহরণ করছেন। বিজ্ঞানভিত্তিক মধু সংগ্রহে অনেকটা বাড়তি আয়ের পাশাপাশি সরিষার ফলন বৃদ্ধির সহায়তা পাচ্ছে কৃষক। এমনটাই বলছেন, মোসাদ্দেক মৌ খামারের স্বত্বাধিকারি মোসাদ্দেক হোসেন।
মৌচাষি-উদ্যোক্ততা গবেষণা করা গবেষক দিনাজপুরের বীরগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ বিশিষ্ট সাহিত্যিক ড. মাসুদুল হক জানালেন, মাটির সুস্বাস্থ্য রক্ষায় সরিষা চাষ লাভজনক। উচ্চ ফলনশীল জাতের সরিষা চাষ ও সরিষা ক্ষেতে মধু উৎপাদন যুগান্তকারী পদক্ষেপ। যা দেশের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে। দিনাজপুর জেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রওনাকুল ইসলাম জানান, বেকার যুবক ও উদ্যোক্তাদের আমরা সরিষা ক্ষেতে মৌ পালনের পরামর্শ ও সহায়তা দিচ্ছি। বিস্তীর্ণ সরিষা ক্ষেতে জেলার প্রায় ৪০টি মৌ খামারে চলছে মধু উৎপাদনের কাজ। এ রছর দেড়শ’ মেট্রিক টন মধু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধরণ করা হয়েছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর