× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

বিভ্রান্তিকর মন্তব্য ও অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন বিএনপি নেতৃবৃন্দ সংসদে উত্থাপিত নির্বাচন কমিশন আইন সম্পর্কে সম্পূর্ণরূপে না জেনে এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অভিপ্রায়ে নানা ধরনের বিভ্রান্তিকর মন্তব্য ও অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। কেননা, গণতান্ত্রিক কাঠামো ও আইনি প্রক্রিয়ার প্রতি বিএনপি’র কোনো শ্রদ্ধাবোধ নেই। বন্দুকের নলের মুখে অসাংবিধানিক ও অবৈধ পন্থায় ক্ষমতা দখল করে যাদের নেতা নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করতে পারে আইনি কাঠামোর প্রতি তাদের আস্থা থাকবে না- এটাই স্বাভাবিক। সংবিধান ও আইন লঙ্ঘনের মধ্য দিয়ে যাদের জন্ম তাদের কাছে যেকোনো আইনি কাঠামোই তামাশা মনে হবে। কারফিউ মার্কা গণতন্ত্রের যে প্রহসনের বীজ তাদের অস্থিমজ্জায় প্রথিত তা থেকে এখনো তারা বেরিয়ে আসতে পারেনি। গতকাল এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে নির্বাচন কমিশন গঠনে একটি আইন প্রণয়নের দাবি সর্বমহল থেকে উঠে এসেছে। দেশের সকল রাজনৈতিক দল ও নাগরিক সমাজের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশন নিয়োগ আইন-২০২২’ নামে আইনের একটি খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দিয়েছে।
এই আইন প্রণয়নের উদ্যোগকে ইতিমধ্যে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সুশীল সমাজের পক্ষ থেকে স্বাগত জানানো হয়েছে। একই সঙ্গে এই আইন পাসের মধ্য দিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে জটিলতা নিরসনে সমাধানের স্থায়ী পথ উন্মুক্ত হতে চলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় মহান জাতীয় সংসদে বিলটি উত্থাপিত হয়েছে। সংসদীয় রীতি অনুযায়ী সংসদে উত্থাপিত বিলটি আইন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে সুপারিশ আকারে সংসদের বৈঠকে উঠবে এবং সংসদীয় বিধান অনুযায়ী সংসদে আলোচনার মধ্য দিয়ে আইনটি চূড়ান্ত হবে। এটাই আইন প্রণয়নের সাংবিধানিক প্রক্রিয়া। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন গঠন আইন সম্পর্কিত বিলটির উপর জাতীয় সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী সকল রাজনৈতিক দল আলোচনা করবেন এবং নিজেদের মতামত ব্যক্ত করবেন। সাংবিধানিক বিধান অনুযায়ী আইন প্রণয়নের ক্ষমতা মহান জাতীয় সংসদের উপর ন্যস্ত রয়েছে। সে মোতাবেক সংসদে উত্থাপিত বিলটি যথাযথ প্রক্রিয়া ও সাংবিধানিক রীতিনীতির মধ্য দিয়েই পাস হবে বলে আশা রাখে। বিবৃতিতে তিনি বলেন, রাজনীতির মাঠে পরাজিত বিএনপি এখন নির্বাচন কমিশন গঠন আইন নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়েছে। এই আইনকে শুধু নয়, তারা বরাবরের মতো নির্বাচন ও নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে। তারই ধারাবাহিকতায় নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার লক্ষ্যে প্রচুর পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগ ও বিদেশে লবিস্ট নিয়োগ মাধ্যমে ষড়যন্ত্রের নতুন নতুন নাটক মঞ্চায়ন করেও বিএনপি’র মরা গাঙ্গের খরা কাটেনি। তাই তারা উদ্ভ্রান্তের মতো প্রলাপ বকতে শুরু করেছে। আমরা বিএনপি নেতৃবৃন্দকে মিথ্যাচার এবং বিভ্রান্তিকর মন্তব্য পরিহার করে দায়িত্বশীল আচরণ ও বক্তব্য প্রদানের আহ্বান জানাচ্ছি।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মোঃ মাহবুব আলম
২৬ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার, ১০:৫৭

পূর্ববর্তী পথেই পরবর্তীদেরকে পথ দেখায়। ভাল হলে জনগনের উপকার, খারাপ হলে তো উভয়েরই ক্ষতি। তাই জাতিকে সেগুলো মনে করিয়ে দিয়ে সচেতন করা দায়িত্বপ্রাপ্ত ক্ষমতাসীনদের দায়িত্বের মধ্যেই বর্তায়। তাই সম্মানিত মাননীয় মন্ত্রী ওবায়েদুল কাদের ভাই ঠিক কথাই বলেছেন। এই তো চাই। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ চিরজীবি হোক।

Kazi
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১২:০৫

জনগণ গনতন্ত্রের অর্থ বুঝে নির্বাচন। এই নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হলেও আওয়ামীলীগ ক্ষমতাসীন হত। কিছু আসন কম হত। এতে দলীয় কোন্দল কমত। জিয়ার অবৈধ ক্ষমতা দখল মানুষ ভুলে গেছে । ক্ষমতায় গিয়ে কিছু সমর্থক গোষ্ঠীর সৃষ্টি করেছেন যারা আইনের শাসন বুঝে না । সংবিধান বুঝার ধার ধারে না।

rimon
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ২:২৯

kobita na bole bastobe asen sir. onek hoece r koto BNP BNP korben. moner vitore sob somoy ei jinish ta i khochai karon apnara nije ra o janen. baki r ni bolte gelam.

অন্যান্য খবর