× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

অসলোতে পশ্চিমা নেতাদের সঙ্গে তালেবানদের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক শুরু আজ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৪, ২০২২, সোমবার, ১০:৪৬ পূর্বাহ্ন

নরওয়ের রাজধানী অসলোতে পশ্চিমা কর্মকর্তাদের সঙ্গে আজ সোমবার আলোচনায় বসছেন আফগানিস্তানের তালেবান কর্মকর্তারা। আগস্টে তারা জোরপূর্বক ক্ষমতা দখলের পর এটাই ইউরোপে তাদের প্রথম আলোচনা। এর স্থায়িত্ব হবে তিনদিন। এতে আফগানিস্তানের মানবাধিকার এবং মানবিক সঙ্কট নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। এর আগে রোববার মানবাধিকার কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেছে তালেবানরা। তাতে কি আলোচনা হয়েছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হয়নি। নারীবাদী একজন অধিকারকর্মী জমিলা আফগানি বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, আলোচনায় সদিচ্ছা দেখা গেছে। তিনি বলেছেন, এখন আমরা দেখবো, তালেবানদের কথার সঙ্গে কাজের মিল কতটুকু।
অন্যদিকে ইউরোপের বিভিন্ন স্থানে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়েছে। তা থেকে তালেবানদের সঙ্গে আলোচনায় না বসার আহ্বান জানানো হয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

তালেবানরা আফগানিস্তানের ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার পর সেখানে ভয়াবহ এক মানবিক সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে। জাতিসংঘ বলছে, শতকরা ৯৫ ভাগ আফগান পর্যাপ্ত খাবার পাচ্ছেন না। এর কারণ, আফগানিস্তানের অর্থনীতি মূলত বিদেশি সাহায্য নির্ভর। গত বছর ১৫ই আগস্ট তারা ক্ষমতা কেড়ে নেয়ার পর থেকে সব রকম বিদেশি সাহায্য স্থগিত হয়ে গেছে। যুক্তরাষ্ট্রের রিজার্ভে থাকা আফগানিস্তানের কয়েক শত কোটি ডলারের রিজার্ভ জব্দ করেছে দেশটি। ফলে অনাহারে মৃত্যুর মুখে পতিত হয়েছেন আফগানরা। এ অবস্থায় আজ সোমবারে পশ্চিমা কর্মকর্তাদের সঙ্গে তালেবান নেতাদের বৈঠককে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে যে কয়েক শত কোটি ডলারের অর্থ জব্দ হয়ে আছে, তা অবমুক্তির অনুরোধ জানাবেন তারা।

আফগানিস্তানে এখন কোনো কাজ নেই। অর্থ সঙ্কট। তীব্র শীতে কাঁপছে মানুষ। তার সঙ্গে খাদ্যপণ্যের দাম আকাশছোঁয়া। স্থানীয় মুদ্রার মান একেবারে তলানিতে চলে যাচ্ছে। ব্যাংকে তরল অর্থ নেই। ফলে মানুষ তার একাউন্ট থেকে অর্থ তুলতে পারছে না। পারলেও তা সীমিত পরিমাণ। জাতিসংঘ বলেছে, এ অবস্থায় আফগানিস্তানে শতকরা ৫৫ ভাগের বেশি মানুষ অনাহারের মুখোমুখি।
বার্তা সংস্থা এপিকে তালেবান প্রতিনিধি শফিউল্লাহ আজম বলেছেন, আমরা পশ্চিমাদের কাছে অনুরোধ করবো আফগান সম্পদগুলো অবমুক্ত করতে। তারা যেন রাজনৈতিক কারণে আফগানিস্তানের সাধারণ মানুষকে শাস্তি না দেন। যেহেতু মানুষ অনাহারে, ভয়াবহ শীতে, তাই আমি মনে করি আফগানদের শাস্তি না দিয়ে তাদেরকে সহায়তার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জন্য এখনই উত্তম সময়।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Munir Hossain
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১২:৪৩

তালেবানরা জুর করে খমতা দখল করেনি। বরং তালেবানদের কে জুর করে খমতা থেকে সরানো হয়েছিল। ২০ বছরের বেশি সময় দরে বিদেশিরা জুর করে আফগানিস্তানের রাস্ট্র ক্ষমতায় তাদের পছন্দের কিছু দালালদের কে খমতায় বসিয়ে রেখে ছিল

অন্যান্য খবর