× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

শাবি ভিসির পক্ষ নিয়ে ৩৪ ভিসি পদত্যাগ করলে জাতি কলঙ্কমুক্ত হবে: নুর

শিক্ষাঙ্গন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৪, ২০২২, সোমবার, ৭:৪১ অপরাহ্ন

গণঅধিকার পরিষদের সদস্য সচিব ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন,একজন ভিসি যিনি তার শিক্ষার্থীদের দমানোর জন্য তার অনুগত ছাত্র সংগঠনকে ব্যবহার করেন, পুলিশ সাউন্ড গ্রেনেড জল কামান নিয়ে ছাত্রদের দমন করে, সেই ভিসির পক্ষে যারা থাকে তাদের ভিসি নয় সাধারণ শিক্ষক হিসেবে থাকার কোন নৈতিক যোগ্যতা নেই। তাই আমি মনে করি শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পক্ষ নিয়ে ৩৪ জন ভিসি যদি পদত্যাগ করেন তাতে জাতি কলঙ্কমুক্ত হবে।

সোমবার শাবি শিক্ষার্থীদের সংহতি জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘বাংলাদেশ শিক্ষক নেটওয়ার্ক’ এর ডাকা এক প্রতিকী অনশনে সমর্থন জানাতে এসে এসব কথা বলেন নুর।

নুরু বলেন, রাজনৈতিক আনুগত্যের প্রতিদান দিতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি নিয়োগ দেয়া হয়। রাজনৈতিক বিবেচনায়  নিয়োগ দেয়া এসব ভিসিদের  জ্ঞান-গরিমা পাণ্ডিত্যের দিকি বিবেচনায় নয়। শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ফরিদ উদ্দিনের পদত্যাগ দাবি করে তিনি বলেন, শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ন্যয্য আন্দোলনের সমর্থনে সারাদেশে মানুষেরা যেভাবে পাশে দাঁড়িয়েছে, সেটি বাংলাদেশের বর্তমান সময়ে এক নতুন সংগ্রামের অনুপ্রেরণা যোগাবে। আগে কিংবা পরে হোক শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগ করতে হবে।।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
true
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ১১:৩৪

শাবি ভিসির পক্ষ নিয়ে ৩৪ ভিসি পদত্যাগ করলে, সত্যিকারের সম্মানিত ভিসি নিয়োগ পাবে।

Nurullah momen
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ৯:০২

অবশ্যই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ফরিদ উদ্দিন এর পদত্যাগ করা উচিত রাষ্ট্রপতির হস্তক্ষেপ করা উচিত

Yasin Khan
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ৯:৩০

১৬ কোটি মানুষকে সাক্ষী রেখে যারা জালিয়াতি করে ক্ষমতায় যায় তাদের কাছে নীতি কথা না বলাই ভালো।

pipilika
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ৮:১৬

ভিসি সাহেবেরা কখনই পদত্যাগ করবেন না।কারন ক্ষমতায় থাকলে আত্মীয় স্বজনদের চাকুরী দেয়া যায়, ব্যাংকের অংক টা বাড়তে থাকে। এদেশে কেই ক্ষমতা হাতে পেলে ছাড়ার নজির নাই

আবুল কাসেম
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ৭:৪৪

ভিসিদের কী থেকে কী হয়ে গেলো যে তাঁদের সন্তানতুল্য শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিতে তাঁরা পরোয়া করছেন না। 'দুর্জন বিদ্যান হলেও পরিত্যাজ্য' কথাটা কি তাঁদের জন্য প্রযোজ্য? কারণ তাঁরা যে সজ্জন সেটার পরিচয় তাঁরা দিতে পেরেছেন গত কয়েকদিনের শাবিপ্রবির ঘটনা থেকে? তাঁরা যারপরনাই নিষ্ঠুর হয়ে উঠেছেন। অমানবিকতা তাঁদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে কীভাবে গেঁড়ে বসেছে শাবিপ্রবির ঘটনা না ঘটলে তা বুঝাই হয়তো যেতোনা। একজন শিক্ষকের কাছে ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকরা কি আশা করেন তা কি এসব বিদগ্ধ ভিসিদের জানা নেই? আমাদের ছেলেমেয়েদের জীবন যখন বিপন্ন তাহলে আমরা ঘরে বসে থাকতে পারিকি? যদি এখন অভিভাবকরাও ভিসিদের পদত্যাগ দাবি করে নিজেদের সন্তানের ভবিষ্যৎ নিরাপত্তার কথা ভেবে তা কি খুব বেশি অন্যায় হয়ে যাবে? শিক্ষার্থীদের আন্দোলন বহিরাগতের রঙে অতিরঞ্জিত করা হলেও তা ধোপে টিকবেনা। ৩৪ ভিসি যদি সত্যিই পদত্যাগ করতে চান তাহলে দেরি কেনো? কলঙ্ক মুক্ত হোক দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিটগুলো। অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা পদত্যাগের হুঙ্কার দিয়েছেন ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদের কারণে। যত আহাম্মকের দল! বেকুব নির্লজ্জ বেহায়া কোথাকার! আমরা আমাদের ছেলে মেয়েদের আপনাদের কাছে পাঠিয়েছি সুশিক্ষার জন্য। আমরা দেখছি আপনাদেরই বিদ্যা জ্ঞান আর শিক্ষার দৌড়ে দেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ও বিশ্বের প্রথম ৫০০টির মধ্যে নেই। আপনাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণার ব্যপক ব্যবস্থা নেই, ডাইনিংএ স্বাস্থ্যসম্মত খাবার নেই, হলে পর্যাপ্ত বেড নেই, ফলে গণরুমে আমাদের ছেলে মেয়েরা অবর্ণনীয় কষ্ট সহ্য করে থাকে- যে কষ্টটা কোনো পরিবারে কোনো মা-বাবা তাদের দেয়নি, যাতায়াতের পর্যাপ্ত গাড়ি নেই, একটা বিশেষ দলের গুণ্ডামার্কা ছাত্রদের রেগিং এর কবলে পড়ে বহু শিক্ষার্থীর জীবন বিপন্ন হয়েছে। কই এসবের জন্য তো আপনারা কখনো পদত্যাগ করার ঘোষণা দিতে শোনা যায়নি? আসলে আপনাদের বিবেকের মৃত্যু হয়েছে। দয়া করে এবার আপনারা পদত্যাগ করে আমাদের ও ছেলেমেয়েদের রেহাই দিন। প্লিজ রেহাই দিন, প্লিজ।

ZIA
২৪ জানুয়ারি ২০২২, সোমবার, ৭:৫০

VAI APNOR KOTH ER SATHY AK MOT.

অন্যান্য খবর