× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৮ মে ২০২২, বুধবার , ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

গণপরিবহনের ভাড়ার তালিকা টাঙানোর নির্দেশ

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার
২৫ জানুয়ারি ২০২২, মঙ্গলবার

সড়ক পরিবহন আইনের বিধান অনুযায়ী সারা দেশে বাস-মিনিবাসের স্ট্যান্ডে ও দৃশ্যমান জনসমাগম স্থলে গণপরিবহনের ভাড়ার তালিকা টাঙানো ও ইলেকট্রনিক বিলবোর্ডে সে তালিকা প্রদর্শনের ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। সোমবার এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার রুলসহ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে, বাস-মিনিবাসসহ গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআরটিএ) আগামী এক মাসের মধ্যে এ নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।
এ ছাড়া, সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮-এর ১২২ ধারা অনুযায়ী আইনটির বিধিমালা প্রণয়ন না করতে পারার ব্যর্থতা, একই আইনের ৩৪ (৩) ধারার বিধান অনুযায়ী গণপরিবহনের ভাড়ার তালিকা প্রকাশ্য ও দৃশ্যমান স্থানে না টাঙিয়ে ভাড়া আদায় নিয়ন্ত্রণ করতে না পারা এবং ৩৪ (৪) ধারার বিধান অনুযায়ী যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধের ব্যর্থতা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব, সহকারী সচিব, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান, পরিচালক (প্রকৌশল)কে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন  এডভোকেট আবু তালেব এবং সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মুসতাসীম তানজীর। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার। পরে এডভোকেট আবু তালেব গণমাধ্যমকে বলেন, সারা দেশের বাস-মিনিবাসের স্ট্যান্ডে ও দৃশ্যমান জনসমাগম স্থলে গণপরিবহনের ভাড়ার তালিকা টাঙানো ও ইলেকট্রনিক বিলবোর্ডে তালিকা প্রদর্শনের নির্দেশ দিয়েছেন।
বাস-মিনিবাসসহ গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮-এর গণপরিবহনের আসনসংখ্যা ও ভাড়া নির্ধারণ’ সংক্রান্ত ৩৪ (৩) ধারায় বলা হয়েছে, ‘কোনো গণপরিবহন, সহজে দৃশ্যমান স্থানে ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ব্যতীত যাত্রী পরিবহন করিতে পারিবে না।’ আর ৩৪(৪) ধারায় বলা হয়েছে, ‘কোনো গণপরিবহনের মালিক, চালক, ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান উপধারা (২)-এর অধীন নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া দাবি বা আদায় করিতে পারিবে না।’
গত ৪ঠা জানুয়ারি, সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮-এর বিধিমালা প্রণয়ন না করে ভবিষ্যতে বাস-মিনিবাসসহ সব ধরনের গণপরিবহনের ভাড়া বাড়ানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞাসহ একগুচ্ছ নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছিলেন আইনজীবী মো. আবু তালেব।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর