× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২৬ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৪ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

মাগুরায় করোনা সংক্রমণ বাড়ছে

বাংলারজমিন

মাগুরা প্রতিনিধি
২৬ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার

মাগুরায় জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে করোনা রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষ করে চলতি সপ্তাহে শনাক্তের হার ৪৪ শতাংশ। স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, বর্তমান বৈরী আবহাওয়া, শৈত্যপ্রবাহ আর মানুষের মাঝে সচেতনতার অভাবে করোনা রোগী বাড়ছে। অনেকের জ্বর, ঠাণ্ডা ও কাশি থাকলেও পরীক্ষা করাচ্ছে না। তবে যারা বেশি অসুস্থ হচ্ছেন শুধু তারাই করোনার উপসর্গ নিয়ে পরীক্ষা করাতে বুথগুলোতে আসছেন।
জেলার গত শনিবার ৩৩ জনের নমুনার মধ্যে করোনা রোগীর সংখ্যা ছিল ১০ জন, রোববার ৩৭ জনের নমুনার মধ্যে পজিটিভ ১০ এবং গত সোমবার ৩৩ নমুনার মধ্যে করোনা শনাক্ত হয় ১৪ জনের। এর মধ্যে বাড়িতে ৭৪ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে এসব রোগীর স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি তেমন নেই বলে জানা গেছে।
আক্রান্তদের মধ্যে অনেকেরই করোনার টিকা নেওয়া ছিল। আবার কেউবা বুস্টার ডোজ নিয়েও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এমন তথ্য পাওয়া গেছে ।
মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসিন কবীর সপরিবারে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে সোমবার নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন ।
এদিকে, মাগুরা সদর হাসপাতালে করোনা রোগী ভর্তি রয়েছে সোমবার পর্যন্ত ৪ জন। তারা করোনা পজিটিভ ছাড়াও আগে থেকে নানারকম শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের চিকিৎসরা জানান, এবার করোনায় যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তারা অনেকেই সাধারণ সর্দি জ্বর নিয়ে আসছেন। তবে এবার রোগীদের মধ্যে শ্বাসকষ্ট একটু কম দেখা গেছে।
করোনা আক্রান্ত রোগীরা এখন কোন ভ্যারিয়েন্ট তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে জানান জেলা সিভিল সার্জন শহীদুল্লাহ দেওয়ান। কারো করোনা শনাক্ত হলে সাধারণ চিকিৎসা দিলে তা ঠিক হবে বলে তিনি মনে করেন। তিনি আরও বলেন, বাইরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। সেই সঙ্গে যারা এখনো করোনা টিকা নেননি তাদের দ্রুত টিকা নিতে হবে ।
গত ৮ দিনে ৭৭ জন (রবিবার) করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। বাকি শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার কাজ চলছে ।
অপরদিকে, জেলা প্রশাসন থেকে করোনার বিধিনিষেধ মানাতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে জেলা তথ্য অফিসের মাধ্যমে মাইকিং অব্যাহত রয়েছে। করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শহরের মানুষের মুখে মাস্ক ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। হাটে-বাজারে, মার্কেটেসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মানুষের মুখে মাস্ক ব্যবহারের প্রবণতা বেড়েছে। অন্যদিকে, করোনার বিধিনিষেধ ও মাস্ক ব্যবহার বাড়াতে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে শহরের বিভিন্ন স্থানে  ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা হচ্ছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর