× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ১৯ মে ২০২২, বৃহস্পতিবার , ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

প্রচারণায় সরব ফেরদৌস

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার
২৬ জানুয়ারি ২০২২, বুধবার

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচনে কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদ থেকে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে প্রার্থী হয়েছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস। শারীরিক অসুস্থতা এবং শুটিংয়ের কারণে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর থেকে ছিলেন নীরব। তবে গত রোববার থেকে তিনি সরব হলেন প্রচারণায়। এলেন এফডিসিতেও। প্রিয় শিল্পীকে কাছে পেয়ে সারাক্ষণই ঘিরে আছেন সাধারণ শিল্পীরা। ফেরদৌসও সবার আবদার মিটিয়ে ভোট চাইছেন। এক ফাঁকে কথা বলেন তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে। নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে তিনি বলেন, বেশ ভালোই পরিবেশ দেখছি।
একটা পরিবর্তন আসতে চলেছে হয়তো। তবে অনেক অপরিচিত মানুষ দেখছি। আমাদের উচিত এই সময়টাতে আচরণ সংযত রাখা। সুন্দর রাখা। কারণ এরা যারা ঘুরছে সবার কাছে আমরা রোল মডেল, প্রিয় মানুষ। এমন কিছু করা যাবে না যা তাদের মনে আমাদের প্রতি বিরূপ ধারণা তৈরি করে। আমরা একটি সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন চাই যাতে করে যোগ্য একটি নেতৃত্ব উঠে আসে। যারা শিল্পীদের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করবে। ইলিয়াস কাঞ্চনকে
ধন্যবাদ জানিয়ে ফেরদৌস বলেন, আমি অত্যন্ত আনন্দিত ইলিয়াস কাঞ্চন ভাই এবার নির্বাচনে এসেছেন। উনি আমাদের অভিভাবক। আমরা সবসময় চেয়েছি এমন একজন আমাদের দায়িত্ব নিক। রাজ্জাক সাহেব চলে গেছেন। আলমগীর ভাই, ফারুক ভাই, সোহেল রানা ভাইয়েরা অসুস্থ। এমন সময় কাঞ্চন ভাইয়ের বিকল্প ছিল না। তিনি নির্বাচনে আসতে রাজি হয়েছেন, তাকে কৃতজ্ঞতা জানাই। আমার আনন্দ হচ্ছে তার নেতৃত্বে যে প্যানেল সেখান থেকে নির্বাচন করতে পারছি। আমরা যোগ্য একটি নেতৃত্ব শিল্পীদের উপহার দিতে চাই। নির্বাচনী প্রচারণায় আপনি ছিলেন না এতদিন। ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ বা প্রচারণার যে ঘাটতি তা নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে কিনা জানতে চাইলে ফেরদৌস বলেন, আমি তা মনে করি না। আমি বিশ্বাস করি শিল্পীরা আমাকে ভালোবাসেন। আমি নানা সময় তাদের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আমার সেই বিশ্বাস আছে, তার প্রতিদান পাবো।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর