× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২০ মে ২০২২, শুক্রবার , ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৮ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

নিষেধাজ্ঞা দীর্ঘমেয়াদে ব্যবসায় জটিলতা তৈরি করতে পারে: সিপিডি

প্রথম পাতা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার
২৭ জানুয়ারি ২০২২, বৃহস্পতিবার

মানবাধিকার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র যেভাবে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে এ নিয়ে যদি জটিলতা তৈরি হয়, তাহলে দেশের ব্যবসায় দীর্ঘমেয়াদে আশঙ্কা তৈরি হবে বলে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) এক জরিপে উঠে এসেছে। সিপিডি মনে করে, দক্ষ পরিষেবা নিশ্চিত করতে এবং ব্যবসার খরচ কমানোর লক্ষ্যে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো সম্পর্কে ধারণা উন্নত করার লক্ষ্যে সরকারকে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সংস্থাটির মতে, করোনার পর অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার হচ্ছে এটা ঠিক, কিন্তু সে পুনরুদ্ধার অন্তর্ভুক্তিমূলক হচ্ছে না। এক ধরনের বৈষম্যমূলক পুনরুদ্ধার হচ্ছে।

গতকাল রাজধানীর নিজস্ব কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে জরিপের ফল প্রকাশ করে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সিপিডি। বাংলাদেশ ব্যবসায় পরিবেশ ২০২১ উদ্যোক্তা মতামত জরিপের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন সংস্থাটির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম। সঞ্চালনা করেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন।

জরিপে ব্যবসার ক্ষেত্রে ১৬টি সমস্যার মধ্যে দুর্নীতিকে এক নম্বরে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। দ্বিতীয় সমস্যা হিসেবে অদক্ষ প্রশাসনের কথা বলেছেন তারা। আর তৃতীয় সমস্যার কথা বলেছেন অর্থায়নের সীমিত সুযোগকে।

সংবাদ সম্মেলনে সিপিডি জানিয়েছে, ব্যবসায় পরিবেশ জরিপের সময়কাল ছিল গত বছরের এপ্রিল থেকে জুলাই।
দেশের ৭৩টি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ওপর জরিপটি পরিচালনা করা হয়েছিল। যাদের মূলধন ছিল ১০ কোটি টাকার ওপর। ঢাকা, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও ফরিদপুর এলাকায় অবস্থিত ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ১০টি সূচকের ওপর ভিত্তি করে জরিপটি পরিচালনা করা হয়। সেগুলো হচ্ছে- অবকাঠামো, প্রতিষ্ঠান, নিরাপত্তা, আর্থিক বিষয়াদি, ব্যবসা বিনিয়োগ, প্রতিযোগিতা, ব্যবসা পরিচালনায় সুশাসন, মানব সম্পদ গড়ে তোলা, কাজের পরিবেশ ও কর্মসংস্থান এবং অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার ও ঝুঁকি। এরমধ্যে কৃষি, সেবা ও ম্যানুফ্যাকচারিং খাতের ব্যবসায়ীদের ওপর জরিপটি করা হয়।

জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে, ৬৮ শতাংশ ব্যবসায়ী বলেছেন, তাদের ব্যবসায় প্রধান প্রতিবন্ধকতা হলো দুর্নীতি। লাইসেন্স নিতে গিয়ে, কর দিতে গিয়ে এবং বিভিন্ন পরিষেবার জন্য গেলে সেখানে আর্থিক লেনদেন করতে হয়।

৬৭ শতাংশ ব্যবসায়ী তাদের ব্যবসার পথে অদক্ষ আমলাতন্ত্রকে দায়ী করেছেন। টাকা পাওয়ার সুযোগ সীমিত থাকার কথা বলেছেন ৫৫ শতাংশ ব্যবসায়ী। এরপরে আছে যথাক্রমে অপর্যাপ্ত অবকাঠামো, ঘনঘন নীতি বদল।

জরিপে দেখা গেছে, ২৮ শতাংশ ব্যবসায়ী বলেছেন, করোনার প্রভাবে তাদের খরচ কমাতে হচ্ছে। আর খরচ কমাতে গিয়ে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের ঘটনা ঘটছে।

আগামী ১০ বছরে দেশে নতুন কী কী ব্যবসা উঠে আসবে তারও একটি ধারণা পাওয়া গেছে জরিপে। দেখা গেছে, ৬৭ শতাংশ বলেছে- ডিজিটাল আর্থিকসেবা আরও বিকশিত হবে। দক্ষ মানবসম্পদ খাতকে দ্বিতীয় অবস্থানে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। তৃতীয় অবস্থানে আছে ডেটা ম্যানেজমেন্ট।

ব্যবসায়ীরা বলেছেন, করোনা মহামারির কারণে তাদের ব্যবসা পুনরুদ্ধারে আরও ৩ বছর সময় লাগবে। অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে ব্যবসায়ীরা এখনই ফিরে এসেছেন- এটা বলা যাবে না বলে মন্তব্য করেন খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম।

সিপিডি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছে, সম্প্রতি মানবাধিকার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র যেভাবে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে, এ নিয়ে যদি জটিলতা তৈরি হয়, তাহলে ব্যবসায় দীর্ঘমেয়াদে আশঙ্কা তৈরি হবে।

এদিকে বাংলাদেশে ব্যবসায় পরিবেশ নিয়ে উদ্যোক্তাদের মতামতের ভিত্তিতে পরিচালিত এ জরিপে কিছু ইতিবাচক পরিবর্তনের চিত্রও এসেছে। আগে দীর্ঘদিন ধরে দুর্বল অবকাঠামো বিষয়টিকে সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করলেও অব্যাহত বিনিয়োগের ফলে এটি এখন শক্তিশালী অবস্থায় চলে এসেছে বলে ব্যবসায়ীরা স্বীকৃতি দিচ্ছেন। আগে তা শীর্ষ থাকলেও এখন ৪ নম্বরে নেমে এসেছে।

ফাহমিদা খাতুন বলেন, জরিপে প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা, সুশাসন, আর্থিক ব্যবস্থাপনা এবং পরিবেশগত বিষয়গুলো দেখা হয়। বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম এবার প্রতিবেদনটি প্রকাশ না করার কারণে র‌্যাংকিং করার বিষয় নেই। তবে উদ্যোক্তাদের মতামত কী শুধু তাই তুলে ধরা হয়েছে।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর