× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

করোনা নিয়ে আইইডিসিআর'র গবেষণা: আক্রান্তের এক বছর পরও উপসর্গ থাকে

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৭, ২০২২, বৃহস্পতিবার, ৪:৪৬ অপরাহ্ন

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার এক বছর পরও কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গ দেখা যেতে পারে। আর অসংক্রামক রোগীদের কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ২ থেকে ৩ গুণ।
সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান-আইইডিসিআর এক গবেষণা শেষে এসব কথা জানিয়েছে।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিডিসির সহযোগিতায় আইইডিসিআরের ফিল্ড এপিডেমিওলজি ট্রেনিং প্রোগ্রাম (এফইটিপি-বি) কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের প্রাথমিক উপসর্গ পরবর্তী জটিলতাগুলো নিয়ে গবেষণা করেছে।
তবে কবে থেকে এবং কতজন রোগীর ওপর এই গবেষণা পরিচালিত হয়েছে তা জানায়নি আইইডিসিআর।
অনেক কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী সংক্রমণের পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন উপসর্গে ভুগে থাকেন যাকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গ বা পোস্ট কোভিড কন্ডিশনস বলছে।
বুধবার গবেষণার প্রাথমিক তথ্য পর্যালোচনা করে আইইডিসিআর তাদের ওয়েবসাইটে এসব তথ্য দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, কোভিড আক্রান্ত হওয়ার ৩ মাস পর ৭৮ শতাংশ মানুষের শরীরে উপসর্গ দেখা গেছে। এছাড়া ছয় মাস ৬ মাস পর ৭০ শতাংশ, নয় মাস পর ৬৮ শতাংশ এবং এক বছর পর ৪৫ শতাংশ মানুষের শরীরে কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গ দেখা গেছে।

গবেষণার বরাত দিয়ে আইইডিসিআর বলছে, অসংক্রামক রোগ-উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের কোভিড পরবর্তী উপসর্গের আশঙ্কা ২ থেকে ৩ গুণ বেশি।
 এতে প্রতীয়মাণ হয় যে উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের কোভিড পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়া কমাতে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খাওয়া জরুরী।
আইইডিসিআর জানিয়েছে, উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে যারা নিয়মিত ওষুধ সেবন করছেন তাদের কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যারা ওষুধ সেবন করেন তাদের তুলনায় নয় ভাগ পর্যন্ত কমে যায়। একইভাবে ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে নিয়মিত ওষুধ সেবনকারী কোভিড-১৯ পরবর্তী উপসর্গে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যারা ওষুধ সেবন করেন না তাদের তুলনায় প্রায় ৭ ভাগ কমে যায়।।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর