× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিমত-মতান্তরবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে কলকাতা কথকতাসেরা চিঠিইতিহাস থেকেঅর্থনীতি
ঢাকা, ২২ মে ২০২২, রবিবার , ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২০ শওয়াল ১৪৪৩ হিঃ

সিইসি প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য নিকৃষ্ট পথ বেছে নিয়েছেন: মাহবুব তালুকদার

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার
(৩ মাস আগে) জানুয়ারি ২৮, ২০২২, শুক্রবার, ৩:৩২ অপরাহ্ন

চিকিৎসা ব্যয় নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার দেয়া বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, গত ২৭ জানুয়ারি প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা নির্বাচন ভবনে এক প্রেস কনফারেন্স করে আমার চিকিৎসা ব্যয় বছরে ৩০ লাখ থেকে ৪০ লাখ টাকা বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। তিনি অবশ্য খরচের প্রকৃত হিসাব প্রদান করেননি। তিনি আমাকে রোগাক্রান্ত ব্যক্তি উল্লেখ করে বলেছেন, আমি কখনও আইসিইউতে বা কখনও সিসিইউতে থাকি। কিন্তু ইচ্ছা করলেই কেউ আইসিইউতে বা সিসিইউতে থাকতে পারে না। বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে বিশদভাবে অবহিত করা প্রয়োজন মনে করি।

প্রকৃতপক্ষে আমি নির্বাচন কমিশনার হওয়ার সময় থেকেই প্রোস্টেট ক্যানসারে আক্রান্ত। ক্যানসার কালক্রমে শরীরের বিভিন্নস্থানে ছড়িয়ে পড়ছে। আমি সিঙ্গাপুর ও ভারতের চেন্নাইয়ে চিকিৎসা করিয়েছি।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের চার জন চিকিৎসকের মেডিকেল বোর্ড আমাকে বিদেশে চিকিৎসার অনুমোদন দিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনারদের চিকিৎসাবিধি অনুযায়ী আমার চিকিৎসা ব্যয় নির্বাহ করা হয়েছে। তবে গত দুই বছরে আমি চিকিৎসার জন্য সরকারিভাবে বিদেশ যাইনি। বরং এই দুই বছরে চিকিৎসার জন্য সম্পূর্ণ নিজের খরচে আমি আমেরিকা গিয়েছি। বর্তমানে কর্মরত নির্বাচন কমিশনারগণ এবং অবরসরপ্রাপ্ত নির্বাচন কমিশনারগণ সকলেই প্রাপ্যতা ও বিধি অনুযায়ী কমিশন থেকে চিকিৎসা খরচ নিয়ে থাকেন। কেএম নূরুল হুদা নিজেও নির্বাচন কমিশন থেকে চিকিৎসার জন্য টাকা নিয়েছেন।

নির্বাচন কমিশনার হিসাবে অসুখের যথাযথ চিকিৎসা পাওয়া আমার মৌলিক অধিকার। চিকিৎসার কারণেই আমি এখন পর্যন্ত বেঁচে আছি। নির্বাচন বিষয়ে আমার ভিন্নধর্মী অবস্থানের নিমিত্ত সিইসি তার প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য চিকিৎসার বিষয় উল্লেখ করে আমার বিরুদ্ধে এহেন নিকৃষ্ট পথ বেছে নিয়েছেন।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
nazrul
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ৭:৪৬

এই হুদা আওয়ামি দালালের গন আদালতে বিচার হবে -- ইনশাল্লাহ !

Abdur Razzak
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ৫:০১

Mr. Huda ka ইতিহাস ক্ষমা করবেনা।

আবুল কাসেম
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ৩:১৩

তাঁর অধীনে নির্বাচন হয়েছে- আমরা ভোট দিতে পারিনি। আমাদের ভোটের অধিকার হরণের অভিযোগে তিনি অভিযুক্ত। আমরা আদালতের শরণাপন্ন হতে পারতাম। তবে আক্রোশের শিকার হবার আশংকায় কেউ হয়তো হয়নি। কিন্তু ইতিহাস ক্ষমা করবেনা। যার নিজের গাত্রে হাজারো ময়লার আস্তরণ তিনি সমালোচনা করেন বদিউল আলম মজুমদারের, সাবেক সিইসি কেএম নূরুল হুদার। কেএম নূরুল হুদার ২০০৮ সালের নির্বাচন দেশে বিদেশে প্রশংসনীয় হয়েছে। ২০১৮ সালের এবং তৎপরবর্তী স্থানীয় সরকারের সবকয়টি নির্বাচনে ভোটারদের ভোটের অধিকার খর্ব করা হয়েছে। তারপরও তাঁর উঁচু গলা। 'শালুক ফুলের লাজ নাই রাইতে শালুক ফোটে।' তেমনি লাজ যাদের নাই তারা দিনের কাজ রাতে করে। যার লাজ লজ্জা বোধ নেই হারাবার কিছু নেই।

Munir Hossain
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ৩:০৭

ছি ছি নুরুল হুদা এতোটা নিম্নমানের ছি ছি। ধিক্কার এমন কুরুচিপূর্ণ মানুষের জন্য

নাম অপ্রকাশিত
২৮ জানুয়ারি ২০২২, শুক্রবার, ২:৪৫

মাহবুব তালুকদার সাহেব না বললেও আমরা এগুলোই বুঝে নিয়েছিলাম গতকাল যখন পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হল এই জন-প্রত্যাখ্যাত হুদার বক্তব্য।

অন্যান্য খবর