× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী
ঢাকা, ১৪ মে ২০২১, শুক্রবার, ১ শওয়াল ১৪৪২ হিঃ

গাজীপুরে কিশোর গ্যাংয়ের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে
(১ মাস আগে) এপ্রিল ১৩, ২০২১, মঙ্গলবার, ১:৫৯ অপরাহ্ন

গাজীপুরের গাছা থানা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাংয়ের দুপক্ষের মাঝে সংঘর্ষ হয়েছে। এসময় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে এক স্কুলছাত্র নিহত ও অপর এক ছাত্র আহত হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ একজনকে আটক করেছে। নিহত শাকিল মিয়া (১৭) ময়মনসিংহের গৌরীপুর থানার ধীপপুর এলাকার মোঃ রেজাউল করিমের ছেলে। শাকিল পরিবারের সঙ্গে গাজীপুর সিটির গাছা থানাধীন কুনিয়াপাছর এলাকার রুবেল মোল্লার বাসায় ভাড়া থাকে। সে স্থানীয় প্রতিভা স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। আহত ফাহিম (১২) কুনিয়াপাছর এলাকার ফারুক হোসেনের ছেলে এবং প্রত্যাশা কিন্ডার গার্ডেনের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র।  
জিএমপিথর গাছা থানার ওসি ইসমাইল হোসেন ও স্থানীয়রা জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের গাছা থানাধীন কুনিয়াপাছর এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কিশোর গ্যাংয়ের দুপক্ষের মাঝে গত কয়েকদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।
সোমবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় তালেব মার্কেটের সামনে সোনাপাড়া এলাকার ২৪/২৫জন কিশোর ও যুবক অবস্থান নেয়। এসময় সেখানে প্রতিপক্ষের শাকিল মিয়া (১৭) ও মোঃ ফাহিমের (১২) সঙ্গে তাদের কথাকাটি হয়। এর জের ধরে দুথপক্ষের মাঝে সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষরা শাকিল ও মোঃ ফাহিমকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।
পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, এলাকাবাসী গুরুতর আহত শাকিল ও ফাহিমকে স্থানীয় তায়েরুন্নেছা মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে শাকিলকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। আহত ফাহিমকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করেছে। সংঘর্ষকারীরা কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Mahbub
১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৬:১০

It's the fault of the guardians, if guardians are punished most of the crimes are eleminated. We urge the government for introducing a new act in this regard for the greater interest of the nation.

Mahbub
১৩ এপ্রিল ২০২১, মঙ্গলবার, ৬:০৬

It's the fault of the guardians, if guardians are punished for the crime of their children most of the crimes are eliminated. We urge the government for introducing a new act in this regard for the greater interstate of the nation.

অন্যান্য খবর