× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ২৯ জুলাই ২০২১, বৃহস্পতিবার, ১৮ জিলহজ্জ ১৪৪২ হিঃ

করোনা রোগীর আত্মহত্যা

দেশ বিদেশ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
২১ জুন ২০২১, সোমবার

 চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় গলায় ফাঁস দিয়ে আব্দুর রাজ্জাক (৫০) নামে করোনা আক্রান্ত এক রোগী আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল সকাল ১০টায় নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকা ঘরে তিনি আত্মহত্যা করেন। মৃত আব্দুর রাজ্জাক উপজেলার গড়গড়ি গ্রামের সাহাজ উদ্দীন মণ্ডলের ছেলে। তিনি পেশায় গরু ব্যবসায়ী ছিলেন।
আবদুর রাজ্জাকের স্ত্রী ময়না খাতুন বলেন, আমার স্বামী আব্দুর রাজ্জাক কিছুদিন ধরে ঠাণ্ডা জ্বরে আক্রান্ত হলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। গত ১৬ই জুন র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টে তার করোনা পজেটিভ আসে। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি বাড়িতেই চিকিৎসাধীন ছিলেন। করোনা শনাক্ত হওয়ার পর তিনি মানসিকভাবে খুব ভেঙে পড়েন। কিন্তু সে শারীরিকভাবে সুস্থই ছিল।
আলাদা ঘরে থাকলেও সব সময় আমরা তাকে দেখভাল করতাম। আজ সকালে তার কাশির শব্দ শুনতে পাই। কিন্তু সকাল ১০টার দিকে তাকে ডাকতে গিয়ে দেখি ঘরের আড়ায় ফাঁস দেয়া অবস্থায় সে ঝুলছে।
তবে নাগরিক সংগঠন লোক মোর্চার আলমডাঙ্গা উপজেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক দেবেন্দ্রনাথ দোবে ওরফে বাবুলালের ভাষ্য, আবদুর রাজ্জাক করোনায় সংক্রমিত হয়ে ৮ দিন ধরে হোম আইসোলেশনে ছিলেন। আইসোলেশনে থাকার সময় পরিবারের সদস্যরা তার সঙ্গে অমানবিক আচরণ করেছেন। এ কারণে রাজ্জাক আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন।
আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর কবির বলেন, গড়গড়ি গ্রামে একজন করোনা আক্রান্ত রোগী আত্মহত্যা করেছে শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাই। তার প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় বাড়ির লোকজন রাজ্জাকের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করতেন। কেউ তার সঙ্গে দেখা করতেন না। কথা বলতেন না। এমন কী খাবার দেয়ার সময় অনেক দূরে খাবার রেখে চলে যেতেন। এসব নিয়ে প্রায়ই চিৎকার করতেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে সেই ক্ষোভের জেরেই তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর