× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ২৪ অক্টোবর ২০২১, রবিবার , ৯ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ প্রতারক ‘বন্ধু’ আটক

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার

মিরপুরের পল্লবীর বাসিন্দা এক অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীর টাকা আত্মসাৎ করতে সম্প্রতি তারই বড় ভাইয়ের বন্ধু মনির হোসেন মুন্না ছিনতাইয়ের নাটক সাজায়। সংশ্লিষ্ট থানায় সশরীরে হাজির হয়ে মিথ্যা ছিনতাইয়ের বর্ণনা দেন মুন্না। এ সময় পুলিশের সন্দেহ হলে ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে মহানগর পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয় মুন্না। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী মো. ফকরুল আলম ওরফে রিয়ারের বড় ভাই পল্লবীর এক বন্ধুর কাছে নগদ ১০ লাখ ২০ হাজার টাকা পেতেন। ফকরুলের বড় ভাই শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় তার বন্ধু অভিযুক্ত মুন্নাকে উক্ত টাকা আনার জন্য পাঠান। মুন্না পাওনাদারের নিকট থেকে চেক এনে ব্র্যাক ব্যাংক পল্লবী শাখা থেকে টাকা উত্তোলন করেন। পরবর্তীতে ওই টাকা মুন্না তার ভাইয়ের ভাড়াটিয়ার বাসায় রেখে ছিনতাইয়ের নাটক সাজায়। তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী মো. ফকরুল আলম ওরফে রিয়ার বড় ভাইয়ের সঙ্গে মনির হোসেন মুন্নার বন্ধুত্ব দীর্ঘদিনের।
বলা চলে মুন্নাও তাদের পরিবারের একজন সদস্য হয়ে উঠেছেন। ছোট ভাই ফকরুল আলম বিদেশ থেকে টাকা পাঠালে ব্যাংক থেকে টাকা তোলাসহ যাবতীয় অর্থ সংক্রান্ত বিষয়ে মুন্নাই ছিল তাদের ভরসা। বিভিন্ন সময় বড় বড় আর্থিক লেনদেন মুন্নার মাধ্যমে করানো হতো। সূত্র জানায়, গত সোমবার দুপুরে মো. মনির হোসেন মুন্না পল্লবী থানায় এসে ১০ লাখ ২০ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের বর্ণনা দিয়ে অভিযোগ করতে আসেন। এত বড় অঙ্কের টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা শুনে প্রাথমিকভাবে পুলিশের সন্দেহ হয়। তাৎক্ষণিক টহল পুলিশের মাধ্যমে অভিযোগ দিতে আসা ব্যক্তির কথিত ঘটনাস্থলে গিয়ে সিসিটিভি ফুটেজ জব্দ ও আশেপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। সূত্র জানায়, ঘটনাস্থলে ছিনতাইয়ের কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়। পরবর্তীতে কৌশলে মুন্নাকে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বেরিয়ে আসে থলের বিড়াল। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে মুন্না স্বীকার করে, সে নিজেই নগদ ১০ লাখ ২০ হাজার টাকা আত্মসাতের চেষ্টা করে ছিনতাইয়ের নাটক সাজায়। মুন্নার কথায় অসঙ্গতি পেয়ে তৎক্ষণাৎ তাকে আটক করে পুলিশ। বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদে গত সোমবার সকালে পল্লবীর ২ নম্বর রোডের মুন্নার ভাইয়ের ভাড়াটিয়ার বাসা থেকে নগদ ১০ লাখ ২০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ফকরুলের বড় ভাই বাদী হয়ে পল্লবী থানায় প্রতারণা এবং অর্থ আত্মসাতের মামলা করেন।
এ বিষয়ে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. পারভেজ ইসলাম মানবজমিনকে বলেন, বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে প্রতারক মুন্না তার বন্ধুর নগদ টাকা আত্মসাৎ করতে ছিনতাইয়ের নাটক সাজায়। পরবর্তীতে ভুক্তভোগী বন্ধু তার বিরুদ্ধে মামলা করলে গ্রেপ্তার করে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জেলহাজতে পাঠানো হয় প্রতারক মুন্নাকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর