× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠি
ঢাকা, ১৮ অক্টোবর ২০২১, সোমবার , ৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

জামাইয়ের সঙ্গে রসিকতা, ইহুদিদের অসন্তোষের মুখে ট্রাম্প

অনলাইন

মানবজমিন ডিজিটাল
(৩ সপ্তাহ আগে) সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১, সোমবার, ২:৪১ অপরাহ্ন

বরাবরই তিনি বিতর্কিত চরিত্র। কখনও আমেরিকার নির্বাচন নিয়ে তো কখনও করোনা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বার বার খবরের শিরোনামে এসেছেন। তবে এবার বাদ দিলেন না নিজের জামাইকেও।

তাঁর জামাই এবং সিনিয়র উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনার তার নিজের দেশের চেয়ে নাকি ইসরাইলের প্রতি বেশি অনুগত ছিলেন। রসিকতা করে এই মন্তব্য করেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক বব উডওয়ার্ড এবং রবার্ট কস্টা 'পেরিল' নামক একটি বইয়ে উল্লেখ করেছেন বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ট্রাম্প প্রায়শই এইধরণের ঠাট্টা -ইয়ার্কি মারতেন তাঁর জামাইয়ের সঙ্গে।

হোয়াইট হাউসে একবার বৈঠকের সময় ট্রাম্প রীতিমত কুশনারকে নিশানা করে বর্ণবৈষম্য মূলক মন্তব্য করেছিলেন এবং ইসরায়েলের প্রতি তাঁর আনুগত্যের প্রসঙ্গ তুলে ইহুদি-বিরোধী অভিব্যক্তি ব্যবহার করেছিলেন। আরেকটি বৈঠকে ট্রাম্প তো রসিকতার সব সীমা লঙ্ঘন করে গিয়েছিলেন , বলেছিলেন: "জ্যারেড কুশনার, যিনি একজন গোঁড়া ইহুদি পরিবারে বেড়ে উঠেছেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে ইসরাইলের প্রতি বেশি অনুগত।"

ট্রাম্প বারবার দ্বৈত আনুগত্যের প্রসঙ্গ তুলে যে ধরণের রঙ্গ -রসিকতা করছেন তা মোটেও ভালো চোখে দেখছেন না আমেরিকান ইহুদিরা। তাঁদের মতে, 'আমেরিকান ইহুদিরা যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে ইসরায়েলের প্রতি বেশি অনুগত', ট্রাম্পের এই ধরণের দায়িত্বজ্ঞানহীন অভিযোগ শতাব্দী ধরে ইহুদি জনগোষ্ঠীকে হয়রানি এবং নিপীড়নের মুখে ফেলেছে।

'পেরিল 'নামক বইটিতে উল্লেখ করা হয়েছে , ২০১৯- এর এপ্রিলে আমেরিকান ইহুদিদের একটি সভায় ট্রাম্প বলেছিলেন, 'আপনারা যদি ডেমোক্র্যাটদের ভোট দেন তাহলে তা আপনাদের অজ্ঞতাকেই প্রকাশ করবে, সেই সঙ্গে এটাই বোঝাবে যে আপনারা কত বড় বিশ্বাসঘাতক।'

ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বন্দ্ব সমাধানের লক্ষ্যে ফিলিস্তিনি এবং আরব নেতাদের কাছে ২০১৯ সালে একটি প্রস্তাব রেখেছিলেন কুশনার।
যাকে তিনি 'ডিল অফ দ্য সেঞ্চুরি' বলেছিলেন। যদিও ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে এই প্রস্তাব গৃহীত হয়নি, তাদের মতে এটি ইসরায়েলের প্রতি ব্যাপকভাবে পক্ষপাতদুষ্ট ছিল।

সূত্রঃ দা নিউ আরব

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
md shamsul hoque
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৮:৩৯

Mr. Trump's statement absolute right.

জামশেদ পাটোয়ারী
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৬:০১

শত ভাগ সত্য। ট্রাম্প ক্ষমতায় আসাতে সবচেয়ে লাভবান হয়েছে ইসরাইল, এবং তা ট্রাম্পের মেয়ের জামাই কুশনারের মাধ্যমে।

শহীদ
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার, ৩:২২

বাংলাদেশের ফ্রটিকা খেয়ে সত্যটা বলে ফেলেছেন!

অন্যান্য খবর