× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজানস্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীসেরা চিঠিইতিহাস থেকে
ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার , ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিঃ

নভেম্বরে গ্লাসগো লন্ডন ও প্যারিস সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার
১৫ অক্টোবর ২০২১, শুক্রবার

নভেম্বরে গ্লাসগো, লন্ডন ও প্যারিস সফর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলন কপ-২৬-এ যোগদানের জন্য ১লা নভেম্বর থেকে ৩রা নভেম্বর পর্যন্ত গ্লাসগোতে অবস্থান করবেন তিনি। এরপর দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের জন্য লন্ডনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে তিনি সরাসরি প্যারিসে যাবেন ইউনেস্কো থেকে ‘বঙ্গবন্ধু ক্রিয়েটিভ পুরস্কার’- প্রদানের জন্য। বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র ভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী কপ-২৬ শীর্ষ বৈঠকে অংশগ্রহণের জন্য ৩১শে অক্টোবর  গ্লাসগোর উদ্দেশে রওনা হবেন। সেখানে ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) প্রেসিডেন্ট হিসেবে অংশগ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া সাইডলাইনে কপ ২৬-সিভিএফ’র একটি বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন,  সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রী লন্ডনে যাবেন। আমরা চেষ্টা করছি সেখানে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় একটি বৈঠকের। এ নিয়ে কাজ হচ্ছে। যুক্তরাজ্য দ্বিপক্ষীয় ওই বৈঠকটি গ্লাসগোতে করতে চাইছে, কিন্তু আমরা চাই এটি লন্ডনে হোক। এটি লন্ডনে হলে ভালো হয়। ইউনেস্কো কর্তৃক প্রদেয় বঙ্গবন্ধু পুরস্কার দেয়ার জন্য লন্ডন থেকে সরাসরি প্যারিসে যাবেন প্রধানমন্ত্রী বলে জানান- আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, আমরা চাই এই পুরস্কার প্রধানমন্ত্রী নিজ হাতে দিক। আগামী ১১ই নভেম্বর প্রদেয় ওই পুরস্কারটি কে পাচ্ছেন জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, এটি আমরা জানি না। ইউনেস্কোর একটি নিরপেক্ষ কমিটি ঠিক করবে কে পুরস্কার পাবেন। ইউরোপে অবৈধভাবে অবস্থান করা প্রবাসীদের ফেরত নেয়ার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে জার্মানি থেকে ৮৬০ জন বাংলাদেশিকে দেশে ফিরে আসতে হচ্ছে বলে জানান ড. মোমেন। তিনি বলেন, কিছু প্রবাসী অবৈধভাবে ইউরোপে অবস্থান করছে। তাদের কিছু অংশকে জার্মানি থেকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। ইউরোপে অবৈধভাবে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের ফেরত আনার জন্য বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ২০১৮ সালে একটি স্ট্যান্ডার্ড অব প্রসিডিওর সই করে। প্রথমদিকে প্রক্রিয়াটি ভালোভাবে কাজ করলেও পরবর্তী সময়ে করোনা মহামারিসহ বিভিন্ন কারণে ফেরত আসার গতি ঝিমিয়ে পড়ে। এ কারণে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে ইইউ।
অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর